ফ্রান্সে গির্জায় ছুরিকাঘাতে নিহত ৩

ফ্রান্সের নিস শহরের একটি গির্জার সামনে হামলা চালিয়ে একজন নারীসহ তিনজনকে হত্যা করেছে এক হামলাকারী। সে ছুরি দিয়ে ওই নারীর শিরশ্ছেদ করে ফেলে বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিস শহরের মেয়র ক্রিশ্চিয়ার এসত্রোসি জানিয়েছেন, নটরডেম প্রাসাদের একেবারে কেন্দ্রে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে। এটিকে তিনি ‘সন্ত্রাসী’ হামলা এবং ‘ইসলামি ফ্যাসিবাদ’ বলে আখ্যায়িত করেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে সন্দেহভাজন আক্রমণকারীকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ফ্রান্সের জাতীয় সন্ত্রাসবিরোধী কৌঁসুলিরা এরই মধ্যে এ ব্যাপারে হত্যা তদন্ত শুরু করেছেন বলে।

মেয়র ক্রিশ্চিয়ার এসত্রোসি সাংবাদিকদের বলেন, হামলায় সন্দেহভাজনকে যখন আটক করা হচ্ছিল তখন সে অনবরত ‘আল্লাহু আকবর’ বলে চিৎকার করছিল। নিহতদের একজন নটরডেম প্রাসাদের তত্ত্বাবধায়ক।

এদিকে ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাধারণ জনগণকে ঘটনাস্থল এড়িয়ে চলার অনুরোধ জানিয়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড ডারমানিন বলেছেন, তিনি প্যারিসে মন্ত্রিপরিষদের জরুরি বৈঠক ডেকেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার রাত থেকে ফ্রান্সে নতুন করে কঠোর লকডাউন শুরু হতে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে পার্লামেন্টকে বিস্তারিত অবহিত করছিলেন প্রধানমন্ত্রী জ্যঁ কাস্তেক্স। সেখানে নিহতদের স্মরণে পার্লামেন্টে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী সকলের প্রতি ঐক্য ও সংহতি বজায় রাখার আহ্বানে জানিয়ে বলেছেন, এই মুহূর্তে দেশ সত্যি সত্যিই নতুন এক মারাত্মক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড়িয়েছে, এ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

সাম্প্রতিক সময়ে ফ্রান্সে সন্ত্রাসী হামলাগুলোর মধ্যে নিস শহরেই সবচেয়ে মারাত্মক হামলার ঘটনা ঘটছে। এর আগে ২০১৬ সালের ১৪ জুলাই বাস্তিল দিবস উদযাপনের সময় ৩১ বছর বয়সী তিউনিসিয়ার এক অভিবাসী ভিড়ের মধ্যে ট্রাক চালিয়ে দিলে ৮৬ জন প্রাণ হারান।

 

আরও পড়ুন