বক্তৃতাবাজি না করে ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে সমন্বিত অ্যাকশনের আহ্বান

ডেঙ্গু জ্বরের ক্ষেত্রে কার্যকর ওষুধ যেন প্রয়োগ করা যায়, সেজন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার (২ আগস্ট) বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আওয়ামী লীগের তিন দিনের পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচির দ্বিতীয় দিনের কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তিনি এ তথ্য জানান।

এ সময় ডেঙ্গুকে মানবিক ক্রাইসিস উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ডেঙ্গুর ভয়াবহ তাণ্ডব আজকে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এটা বাস্তব সত্য। এই বাস্তবকে অস্বীকার করার কোনও উপায় নেই। পত্রপত্রিকার খবর অনুযায়ী, ৬৪ জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে। সংবাদ মাধ্যমগুলোর সংবাদ অনুযায়ী, আমরা এপর্যন্ত সারাদেশে ১৮ থেকে ১৯ হাজার ডেঙ্গু আক্রান্তের খবর পাচ্ছি। সরকার ডেঙ্গু মোকাবিলায় সচেতনতা কর্মসূচির পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ডেঙ্গু নিধনে যা যা করণীয়— ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সমন্বিতভাবে সেই কাজ করে যাচ্ছে।’

এডিস মশা নিধনে কবে নাগাদ কার্যকর ওষুধ আসছে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘খুব শিগগিরই আমরা বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে কার্যকর ওষুধ আমদানি করব। আমরা এখন যাচাই-বাছাই করছি। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে।’

সেতুমন্ত্রী আরো বলেন, ‘অন্য দেশের অকার্যকর ওষুধ যাতে আমাদের দেশে না এসে পড়ে, সেজন্যই আমরা অতি সতর্কভাবে যাচাই-বাচাই করছি। এজন্য একটু দেরি হচ্ছে।’

অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক ও পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত ও সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশ শেষে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ, বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, বায়তুল মোকাররমসহ আশাপাশের এলাকায় মশার ওষুধ ছিটানো ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

আরও পড়ুন