বন্যার্ত ১৫০০ পরিবারের জন্য ত্রাণ দিল গুলশান ক্লাব

সিলেট ও সুনামগঞ্জে ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত দেড় হাজার পরিবারের জন্য ত্রাণ সহায়তা দিয়েছে ঢাকার অভিজাত গুলশান ক্লাব। সেনাবাহিনীর টাস্কফোর্সের মাধ্যমে ওষুধ ও শুকনো খাবারসহ এই ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

গুলশান ক্লাবের সভাপতি রফিকুল আলম হেলাল জানান, তারা সবসময় সামাজিক দায়বোধ থেকে দুর্গতদের পাশে থাকার চেষ্টা করেন। এবার বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ সহায়তায় ক্লাব সদস্যদের পাশাপাশি সাবেক প্রেসিডেন্টরাও এগিয়ে এসেছেন।

রফিকুল আলম হেলাল বলেন, ‘সামাজিক এবং পারিবারিকভাবেও আমাদের দায়িত্ব আছে। সবসময়ই আমরা যেটা করে আসছি আর এবার সিলেটেও আমরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এবং সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে ত্রাণ দিয়েছি।’

 

‘সেখানে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে ত্রাণ ভালোভাবে ডিস্ট্রিবিউট করা যাবে। আমরা সেনাবাহিনীর মাধ্যমে প্রায় পনেরশ পরিবারের জন্য ওষুধ, শুকনা খাবার, স্যালাইন, বাচ্চাদের জন্য দুধসহ বেশ কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস আমরা দিয়েছি।’

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে ধন্যবাদ জানিয়ে গুলশান ক্লাব প্রেসিডেন্ট হেলাল বলেন, ‘আমরা সেনাবাহিনীকে ধন্যবাদ জানাই। উনারা যেভাবে কাজ করে যাচ্ছেন এটা দেশ এবং জাতির জন্য একটা গর্বের বিষয়। দেশে এবং বিদেশে যেকোনো দুর্যোগের সময় তারা সবসময় দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে থাকেন।’

প্রসঙ্গত, সিলেট ও সুনামগঞ্জে এবারের বন্যায় আগের সব রেকর্ড ভেঙেছে। অতিবৃষ্টি আর উজান থেকে আসা ঢলে সিলেটের ৮০ ভাগ আর সুনামগঞ্জের ৯০ ভাগ এলাকায় তলিয়ে যায়।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী বন্যা কবলিত এলাকার দুর্গত মানুষের মাঝে খাদ্য, ওষুধ ও অন্যান্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করছে। সরকারের নির্দেশনায় বানভাসি মানুষের জন্য সেনা সদস্যরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

আরও পড়ুন