বাগেরহাটে কাঁকড়া চাষ নিয়ে কর্মশালা

বাগেরহাটের মোংলায় রপ্তানী পণ্য শিলা কাঁকড়া চাষ প্রযুক্তি সম্প্রসারণ ও বাজারজাতকরণের মাধ্যমে উদ্যোক্তাদের আয় বৃদ্ধি এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে চাষীদের নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) দিনভর মোংলা উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় স্থানীয় কাঁকড়া চাষী, ডিপো মালিক ও ফড়িয়ারা অংশ নেন।

বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা নবলোকের আয়োজনে ও পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে কাঁকড়া চাষীদের নিয়ে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো. জাহিদুল ইসলাম, সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা এজেডএম তৌহিদুর রহমান, নবলোকের প্রকল্প সমন্বয়কারী মোস্তাফিজুর রহমান ও ভ্যালু চেইন ফ্যাসিলিটেটর জাকির হোসাইন।

কর্মশালার অতিথি ও এনজিও কর্মকর্তারা কিভাবে আবওহাওয়ার সাথে খাপ খায়িয়ে রপ্তানীপণ্য শিলা কাঁকড়া চাষাবাদ, বাজারজাতকরণ, আয় বৃদ্ধি ও কর্মসংস্থানের সৃষ্টি করা যায় এবং নতুন উদ্যোক্তা বাড়ানো যায় সেই সব বিষয় নিয়ে চাষী ও ব্যবসায়ীদের পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি নানাবিধ সমস্যা নিয়ে উম্মুক্ত আলোচনা করেন।

 

বাগেরহাট মৎস্য বিভাগ জানায়, প্রতি বছরই বাগেরহাট জেলার কাঁকড়া উৎপাদন খামেরের সংখ্যা বাড়ছে। জেলার মোংলা, রামপালর ও বাগেরহাট সদরসহ ৬টি উপজেলায় দুই হাজার হেক্টর জলভূমিতে প্রায় ৩ হাজার কাঁকড়া খামার রয়েছে। এসব খামারে উৎপাদিত শিলা কাঁকড়ার মধ্যে প্রতিবছর আড়াই হাজার মেট্রিক টন কাঁকড়া বিদেশে রপ্তানী হয়ে থাকে।

 

আরও পড়ুন