বাড়ি ফিরলেন পাকিস্তানে অপহৃত শিখ তরুণী, গ্রেফতার ৮

ইসলামে ধর্মান্তরকরণের উদ্দেশে পাকিস্তানে অপহৃত শিখ তরুণীকে তার বাড়িতে ফেরানো হয়েছে। আপাতত অভিভাবকদের কাছেই রয়েছে সে। শুক্রবার রাতে তরুণীর বাড়ি ফেরার খবর জানায় নানকানা সাহিব পুলিশ। ঘটনায় জড়িত আট অপরাধীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পাকিস্তানে পাঞ্জাবী মেয়েকে অপহরণ করে মুসলমান সম্প্রদায়ের ছেলের সঙ্গে জোর করে বিয়ে দিয়ে জোরপূর্বক ইসলাম ধর্মান্তরকরণের চেষ্টার অভিযোগ ওঠে। এই খবর প্রথম সামনে নিয়ে আসেন শিরোমণি অকালি দলের বিধায়ক মানজিন্দর সিং শিরসা। অপহৃতার পরিবারের লোকদের একটি ভিডিও পোস্ট করেন তিনি। যেখানে অভিযোগ করা হচ্ছে, বাড়ির মেয়েকে জোর করে ধর্মান্তরকরণের চেষ্টা হচ্ছে। খবর: এনডিটিভি।

পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের উপর এই অত্যাচারের ঘটনা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে যায়। শিখদের মধ্যে অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়ে। অপহৃত তরণী টাম্বু সাহিব গুরুদ্বারের পুরোহিত ভগবান সিংয়ের কন্যা বছর ১৯-শের জগজিৎ কৌর। ভারতে এ খবর প্রকাশের পরই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের তরফে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। পাকিস্তান প্রশাসনকে দ্রুত পদক্ষেপের আর্জি জানানো হয়।

শুক্রবার সকালে প্রতিবাদে সরব হতে দেখা যায় পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংকে। অবিলম্বে ‘দৃঢ় ও তাৎক্ষণিক’ পদক্ষেপ করার জন্য পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে আবেদন জানান পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী। অপরাধীদের অবিলম্বে ধরার জন্য প্রশাসনে সক্রিয় উদ্যোগের দাবি জানানো হয়েছিল।

পাশাপাশি, বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকেও এই বিষয়ে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার অনুরোধ জানিয়েছিলেন কংগ্রেস নেতা অমরিন্দর সিং। ট্যুইটে নিজেই সেই কথা তথ্য তুলে ধরেন তিনি।

ট্যুইটে অপহৃতের পরিবারের একটি ভিডিও আপলোড করে অমরিন্দর সিং লেখেন, ‘পাকিস্তানের নানকানা সাহিবে এক শিখ পুরোহিতের কন্যাকে অপহরণ করা হয়েছে ইসলামে ধর্মান্তকরণের জন্য। অত্যন্ত জঘন্য ঘটনা। ইমরান খানকে দৃঢ় ও তাৎক্ষণিক পদক্ষেপের আহ্বান জানিয়েছি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকেও বিষয়টি দেখার ও পাক বিদেশমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার অনুরোধ করেছি।

আরও পড়ুন