বিয়ের ২২ দিন পর নববধূর লাশ উদ্ধার

কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রামে বিয়ের মাত্র ২২ দিন পর চায়না আক্তার (১৮) নামে এক তরুণী স্বামীর হাতে খুন হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। বুধবার (৩১ জুলাই) সকালে উপজেলার দেওঘর ইউনিয়নের উত্তর আলীনগর গ্রামের বাবার বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। রাতে চায়না আক্তারের সাথে একই ঘরে অবস্থান করা স্বামী ফায়েজ মিয়া (২৪) এর আগেই গা ঢাকা দেয়।

পুলিশের ধারণা, শ্বাসরোধ করে চায়নাকে হত্যা করা হয়েছে। তার গলায় আঘাতের চিহ্ণ রয়েছে।

জানা গেছে, নিহত চায়না আক্তার উপজেলার দেওঘর ইউনিয়নের উত্তর আলীনগর গ্রামের মো. আক্কাছ মিয়ার মেয়ে। অন্যদিকে, স্ত্রী হত্যায় অভিযুক্ত স্বামী ফায়েজ মিয়া একই ইউনিয়নের আলীনগর মধ্যপাড়া গ্রামের ছমির উদ্দিনের ছেলে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মাত্র ২২ দিন আগে গত ৮ জুলাই ফায়েজ মিয়ার সাথে চায়না আক্তারের বিয়ের কাবিননামা সম্পাদন হয়। চায়নাকে শ্বশুর বাড়িতে তুলে না নেয়ায় স্বামী ফায়েজ মিয়া প্রায়ই শ্বশুরবাড়িতে আসতো।

মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) ফায়েজ শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে আসে। রাতে স্ত্রী চায়নার সঙ্গে একই ঘরে সে রাত্রিযাপন করে।

বুধবার (৩১ জুলাই) সকালে অনেক বেলা হলেও ঘুম থেকে না ওঠায় চায়নাকে ডাকতে যায় পরিবারের লোকজন। এ সময় বিছানায় চাদরে ঢাকা চায়নাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পায় তারা। অন্যদিকে স্বামী ফায়েজের কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি।

বিষয়টি পুলিশকে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

অষ্টগ্রাম থানার ওসি মো. কামরুল ইসলাম মোল্ল্যা জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এ ঘটনায় নিহত চায়নার বাবা মো. আক্কাছ মিয়া বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

আরও পড়ুন