বিশ্বকাপ ট্রফির আদলে সেজেছে পূজামন্ডপ

রাজশাহীতে আকর্ষণীয় সাজে পূজামন্ডপ তৈরি করেছেন আয়োজকরা। মন্ডপ তৈরিতে প্রতিবারই চলে প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতায় বাহারি সব থিমের আদলে সাজানো হয়েছে মন্ডপ। বিশেষ করে রাজশাহীর টাইগার সংঘের পূজামন্ডপ মানেই নতুন কিছু। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। সামনে কাতার ফুটবল বিশ্বকাপ ট্রফির অবয়বে মন্ডপের ফটক সাজানো হচ্ছে। আয়োজক সূত্রে জানা যায়, নগরীর রানীবাজার মোড়ে টাইগার সংঘের পূজামন্ডপটিতে থাকছে ২৬ ফুট উচ্চতার বিশ্বকাপ ট্রফি। সঙ্গে থাকবে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী ৩২টি দেশের পতাকা। ঠিক মাঝখানে থাকবে বাংলাদেশের পতাকা। পাশেই থাকবে একতাবদ্ধের প্রতীক। গত বছর করোনার সচেতনতায় মাস্কের আদলে মন্ডপ তৈরি করা হয়েছিল। এর আগে গায়ক আইয়ুব বাচ্চুর স্মরণে রুপালি গিটারে সেজেছিল মন্ডপ। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, বাহুবলী, ক্রিকেট বিশ্বকাপ চলাকালে রয়েল বেঙ্গল টাইগারের মুখের অবয়ব দিয়ে মন্ডপ তৈরি করে প্রশংসা কুড়ায় টাইগার সংঘ। এবার টাইগার সংঘের পূজামন্ডপটি সাজানো হয়েছে দুভাবে। প্রতিমা ও মঞ্চ উভয়ই পৃথক অর্থ বোঝাবে। টাইগার সংঘের সাধারণ সম্পাদক পার্থ পাল চৌধুরী বলেন, বরাবরই দুর্গোৎসবে নতুন আর ব্যতিক্রমী সাজে মন্ডপ সাজিয়ে থাকে টাইগার সংঘ। এবার আসন্ন কাতার বিশ্বকাপ ফুটবল উন্মাদনার কথা মাথায় রেখে ২৬ ফুটের একটি ট্রফি ও বিভিন্ন দেশের পতাকা এবং বিশ্বকাপ লোগো দিয়েই থিম করা হয়েছে। কাতার ফুটবল বিশ্বকাপের ইভেন্ট পয়েন্টগুলো দিয়ে মন্ডপ সাজানো হয়েছে। প্যান্ডেলের রংও ফিফার অফিশিয়াল চারটি রঙে।

তিনি আরও বলেন, থিমের সাইজ হবে ৪২ ফুট ও ৩০ ফুট। মূল ট্রফিটি হবে ২৬ ফুট লম্বা ও ১০ ফুট চওড়া। এটি ৪০ ফুট করার কথা ছিল। কিন্তু সেই প্রযুক্তি না থাকায় কমিয়ে আনা হয়েছে। এ ছাড়া ৩২টি দেশের পতাকাও থাকবে। আমাদের প্রতিমাও এবার রাজশাহীর মধ্যে সবচেয়ে বড় হবে। এটি লম্বায় হবে ১২ ফুট। প্রতিমা বসানোর স্থানটিও বিশ্বকাপ ট্রফির নিচের আদলে বানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন