ভেজাল মদ পানে ৮৬ জনের প্রাণ গেছে পাঞ্জাবে

ভারতের পাঞ্জাবে ভেজাল মদ পানে গত কয়েকদিনে অন্তত ৮৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গতকাল শনিবার (১ আগস্ট) পুলিশ শতাধিক জায়গায় অভিযান চালিয়ে অনেক মদ জব্দ করেছে। এ সময় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ২৫ জনকে।

দেশটির উত্তরাঞ্চলের ওই প্রদেশটির সরকারি কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়েছে।

সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, রাস্তার ধারে কিংবা স্থানীয়ভাবে তৈরি ভেজাল এসব মদ খেয়ে ভারতে প্রতিবছর শত শত মানুষের প্রাণহানি ঘটে। শুক্রবার পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং ভেজাল মদ খেয়ে এত মানুষের প্রাণহানির ঘটনার একটি তদন্ত শুরু করার নির্দেশ দিয়েছেন।

এসব অবৈধ মদ একসঙ্গে অনেক তৈরি করা হয়। তারপর সেগুলো রাস্তার পাশের ছোট ছোট দোকানগুলোতে অবৈধভাবে বিক্রির মাধ্যমে চলে স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে। এরপর তা পান করে অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন। যাদের অনেকে আর বেঁচে থাকার সুযোগ পান না। অনেকে আবার হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হন।

অনুমোদন নিয়ে তৈরি মদের চেয়ে ভারতে ভেজাল মদ পাওয়া যায় সাধারণ গ্রাম কিংবা মফস্বল এলাকাগুলোতে। আর এসব মদ খেয়ে গ্রামীণ এলাকাগুলোতেই মৃত্যুর ঘটনা বেশি ঘটে।

ভেজাল মদ প্রস্তুতকারকরা মাঝে মধ্যেই এসব মদে মিথানল মিশিয়ে থাকেন। এটি অ্যালকোহলের একটি অত্যধিক বিষাক্ত রূপ যা কখনও কখনও এর শক্তি বাড়ানোর জন্য মদের মিশ্রণে অ্যান্টি-ফ্রিজ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। যদি অল্প পরিমাণেও খাওয়া হয় তবে মিথানল অন্ধত্ব, লিভার অচল এবং মৃত্যুর কারণ হতে পারে।

সূত্র : বিবিসি।

 

আরও পড়ুন