ভোটের হাওয়া; বাগানে গিয়ে ‘চা’ পাতা তুললেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী!

আগামী ২৭ মার্চ থেকে ভারতের আসাম রাজ্যে বিধানসভার নির্বাচন শুরু হচ্ছে। মোট তিন দফায় আসামের ১২৬ বিধানসভার আসনে ভোট নেওয়া হবে। তার আগে সোমবার দুই দিনের আসাম সফরে এসে চা’য়ের বাগান থেকে চা পাতা তুললেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদরা।

মঙ্গলবার সকালের দিকে আসামের বিশ্বনাথ জেলার সাধুরু চা বাগানে যান প্রিয়াঙ্কা। ৪৯ বছর বয়সী প্রিয়াঙ্কার পরণে ছিল পার্পেল রঙের শাড়ি, পিঠে ছিল চা পাতা রাখার জন্য লম্বা ঝুড়ি, গলায় গামছা, কোমরে অ্যাপ্রন। চা-বাগানে গিয়ে সেখানকার শ্রমিকদের সাথে কথা বলেন প্রিয়াঙ্কা। মনযোগ দিয়ে শোনের তাদের অভাব-অভিযোগ। আর সেই সাথেই একটি ঝুড়ি নিয়ে চা শ্রমকিদের মতো পাতা তোলা শুরু করেন তিনি। পরে শ্রমিকদের সাথেই ছবিও তোলেন তিনি। এরপর চা-শ্রমিকদের সাথেই কোমর দুলিয়ে ঝুমর নাচতেও দেখা যায় প্রিয়াঙ্কাকে।

পরে ছবি সহ ট্যুইট করে প্রিয়াঙ্কা জানান ‘চা বাগানের শ্রমিকদের জীবন সত্যতা, সরলতায় ভরা এবং তাদের এই শ্রম দেশের কাছে খুবই মূল্যবান। আজকে তাদের সাথে সময় কাটাতে পেরে আমি তাদের কাজের মর্ম বুঝেছি, তাদের পরিবারের ভাল দিক এবং সমস্যার অনুভব করতে পারলাম।’ তিনি আর লেখেন ‘আমি চা-বাগানের শ্রমিকদের থেকে যে ভালবাসা পেয়েছি তা কখনও ভুলবো না।’

 

এরপর তেজপুরে একটি জনসভা থেকে তিনি ভাষণ দেন। প্রিয়াঙ্কা বলেন ‘আসন্ন নির্বাচনে কংগ্রেস যদি এরাজ্যে ক্ষমতায় আসে তবে তার দল রাজ্যের প্রতিটি গৃহবধূকে ‘গৃহিনী সম্মান’ হিসাবে মাসিক ২ হাজার রুপি করে দেবে। চা-বাগানে কর্মরত নারী শ্রমিকরা দিন প্রতি ৩৬৫ রুপি করে পাবেন। আমরা ৫ লাখ নতুন কর্মসংস্থান তৈরি করবো, প্রতি মাসে ২০০ ইউনিট বিদ্যুৎ বিনামূল্যে দেওয়া হবে-এটা কেবল প্রতিশ্রুতি নয়, আমরা এটা সুনিশ্চিত করছি।’

কংগ্রেস ক্ষমতায় আসলে বিতর্কিত ‘সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন’ বাতিল করতে তার দল নতুন আইন আনবে বলেও জানান প্রিয়াঙ্কা।

এর আগে সোমবার আসামের কামাখ্যা মন্দিরে পুজো দিয়ে নিজের সফর শুরু করেন কংগ্রেস নেত্রী।

 

আরও পড়ুন