মধ্যে রাতে যন্ত্রণায় চিৎকার করে কাঁদছিল ধর্ষণের শিকার যুবতী

রাজশাহীর পবা উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধার প্রতিবন্ধী মেয়েকে (২৫) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে নগরীর উপকণ্ঠে উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের বেড়পাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ভারতীয় গরু আনার রাখাল পাঁচজনকে আটক আটক করে পুলিশে দিয়েছে জনতা। তারা হলেন আসাদুল (২৫), দুখু (৩৫), বাইরুল (৩৩), সজিব (২৪) এবং সাকিম (২৬)। তাদের সকলের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে অভিযুক্তদের নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে নগরীর দামকুড়া থানার পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আটককৃতরা ভারতীয় গরু আনার রাখাল। তারা পবা উপজেলা সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবৈধভাবে ভারতীয় গরু নিয়ে আসত। তাদের মধ্যে আসাদুল ওই প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ করে। বাকিরা তার সহযোগী।

হরিপুর ইউনিয়নের পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য সাইদুর রহমান বাদল জানান, বেড়পাড়া গ্রামের আবদুল বারী নামে ব্যক্তিও ভারত থেকে গরু আনেন। বুধবার দিবাগত রাতে এই পাঁচজন তার বাড়িতেই অবস্থান করছিলেন। গভীর রাতে বারির প্রতিবেশী প্রয়াত এক মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে ঢুকে তার প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণ করে আসাদুল।
তিনি আরও বলেন, রাত তিনটার দিকে মেয়েটি যন্ত্রণায় কাঁতরাচ্ছিল। পাশের বাড়ি থেকে তার খালাতো ভাই তার কান্না শুনতে পেয়ে ওই বাড়িতে গিয়ে ধর্ষণের বিষয়টি জানতে পারেন। কে এই কাণ্ড ঘটিয়েছে জানতে চাইলে মেয়েটি বারির বাড়িতে গিয়ে আসাদুলকে দেখায়। এ সময় স্থানীয়রা পাঁচজনকেই আটকে রেখে আমাকে খবর দেন। এরপর আমি থানায় খবর দেই।

দামকুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম জানান, সকালে ওই পাঁচজনকে থানায় নেওয়া হয়। পরে নির্যাতিতার খালাতো ভাই বাদী হয়ে মামলা করেন। এতে আসাদুলকে মূল অভিযুক্ত এবং অন্য চারজনকে তার সহযোগী হিসেবে আসামি করা হয়েছে। তাদের সবাইকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
তিনি আরও জানান, শারীরিক পরীক্ষার জন্য ওই তরুণীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন