মাস্ক পরা নিয়ে ফের সুর পাল্টালেন ডোনাল্ড ট্রাম্প!

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তার আশপাশে যদি মানুষ বেশি থাকে, তাহলে তিনি মাস্ক পরবেন। অথচ এর আগে মাস্ক নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইনকে ক্রমাগত উপেক্ষা করে গেছেন ট্রাম্প।

ট্রাম্প জনসমাগমে মাস্ক পরতেন না। তিনি বলতেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য মুখে মাস্ক পরার বিষয়টি বাধ্যতামূলক করার প্রয়োজন নেই। সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

সম্প্রতি রিপাবলিকান দলের একজন জ্যেষ্ঠ সদস্য ট্রাম্পকে আহ্বান জানান, তিনি যাতে দৃষ্টান্তমূলক উদাহরণ সৃষ্টির জন্য মাস্ক পরেন। এর একদিন পরই মার্কিন গণমাধ্যম ফক্স নিউজে ট্রাম্প মাস্ক পরার পক্ষে মন্তব্য করেন।

ফক্স বিজনেস নেটওয়ার্কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমি মাস্কের পক্ষে।’ তাকে জিজ্ঞাসা করা হয় যে তিনি মাস্ক পরবেন কিনা? উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমি যদি মানুষের সঙ্গে ঠাসাঠাসি অবস্থায় থাকি, তাহলে আমি অবশ্যই আমি মাস্ক পরবো।’

যেদিন মাস্ক পরার পক্ষে ট্রাম্প এমন মন্তব্য করেন সেদিনটিতে যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে সর্বোচ্চ ৫২ হাজার মানুষের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

ট্রাম্প বলেন, মানুষ তাকে অতীতে মাস্ক পরতে দেখেছে এবং জনসমাগমের মধ্যে এটি পরতে তার কোনও সমস্যা নেই।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সব জায়গায় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করার প্রয়োজন নেই। আমাদের দেশে অনেক জায়গা আছে যেখানে মানুষজন পরস্পরের কাছ থেকে বেশ দূরে অবস্থান করে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, লোকজন যদি মাস্ক পরে ভালো বোধ করে তাহলে তারা পরতে পারে।

ট্রাম্পের কাছে প্রশ্ন ছিল, করোনাভাইরাস একদিন উধাও হয়ে যাবে! এ কথা তিনি এখনও বিশ্বাস করেন কিনা? জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি। অবশ্যই, কোন একটা সময় এটা চলে যাবে।’

মাস্ক নিয়ে ট্রাম্প আগে যা বলেছিলেন

গত এপ্রিলে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল (সিডিসি) জনসমাগমে মাস্ক পরিধান করার সুপারিশ করেছিল। তখন ট্রাম্প বলেছিলেন, তিনি মাস্ক পরবেন না। সে সময় তিনি বলেছিলেন, একজন মানুষ মাস্ক পরবে কি না, সেটি তার ব্যক্তিগত পছন্দের বিষয়।

গত মাসে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে ট্রাম্প বলেন, তার বিরুদ্ধে রাজনীতি করতে কিছু মানুষ মাস্ক পরে।

গত মে মাসে মিশিগানে একটি কারখানা পরিদর্শনে গিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তখন তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ক্যামেরার সামনে আসার আগে তিনি মাস্ক খুলে ফেলেছেন।

ট্রাম্প বলেন, ‘মাস্ক পরার মাধ্যমে আমি সংবাদমাধ্যমকে আনন্দ দিতে চাই না।’

ট্রাম্প যেদিন মাস্ক পরার পক্ষে মন্তব্য করেন, সেদিন যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে সর্বাধিক ৫২ হাজার মানুষের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারস-এর তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৭ লাখ ৭৯ হাজার ৯৫৩। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৩০ হাজার ৭৯৮ জনের।

 

আরও পড়ুন