মিস্টার খান আপনি ব্যর্থ হয়েছেন: মরিয়ম

কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ও ৩৫এ ধারার অবলুপ্তিতে এবার নিজের দেশেই সমালোচনার মুখে পড়লেন ইমরান খান৷ সোমবার ভারতের এই ঐতিহাসিক পদক্ষেপের পরই পাক প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ শানালেন নওয়াজ শরিফকন্যা মরিয়ম নওয়াজ৷ বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নির্বুদ্ধিতার সমালোচনা করে তিনি জানালেন, ট্রাম্পের মধ্যস্থতার বার্তায় যখন বোকার মতো মজে ছিলেন ইমরান খান, তখন ভারতের পরবর্তী কৌশল বুঝতেই পারেননি প্রধানমন্ত্রী৷

 

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কৌশলে সোমবার কাশ্মীরের পুনর্জন্মের পরই টুইট করেন প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের কন্যা৷ পিটিআই প্রধান ইমরান খানের উদ্দেশে তিনি লেখেন, ‘মিস্টার খান (ইমরান খান) আপনি বুঝতেই পারেননি যে কী অপেক্ষা করছে এবং ভারত সরকারের পরবর্তী পদক্ষেপ বুঝে সেমতো কৌশল রচনা করতে আপনি ব্যর্থ হয়েছেন৷’ এখানেই শেষ নয়, এরপরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাশ্মীর ইস্যুতে মধ্যস্থতার প্রসঙ্গটি টেনে আনেন নওয়াজকন্যা৷ ইমরানকে একহাত নিয়ে তিনি সাফ জানান, বোকার মতো মার্কিন প্রেসিডেন্টের মধ্যস্থতার বার্তা নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন ইমরান খান৷ শত্রুপক্ষের পরবর্তী কৌশল বুঝতে পারেননি তিনি৷

উল্লেখ্য, সোমবার কাশ্মীর বিষয়ে নয়াদিল্লির যুগান্তকারী সিদ্ধান্তের পরই, এর বিরোধিতায় সরব হয় পাকিস্তান৷ প্রথমে ভারতের সমালোচনা করেন পাক বিদেশমন্ত্রী৷ এরপর মুখ খোলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও৷ বিশেষ মর্যাদা তুলে দিয়ে কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ও ৩৫এ ধারার যে বিলুপ্তি ঘটিয়েছে কেন্দ্র, তাকে অনৈতিক বলেন তিনি৷ এভাবে কাশ্মীর সমস্যা আরও বাড়বে বলে দাবি করেন ইমরান খান৷ এরপরই পাক প্রধানমন্ত্রীকে একহাত নিয়েছেন পাকিস্তানে মুহাজির নেতা নাদিম নুসরতও৷ দিনের পর দিন সেদেশে যেভাবে অবহেলিত হতে হচ্ছে মুহাজিরদের, সেই প্রসঙ্গই টেনে ইসলামাবাদকে একহাত নেন তিনি। এ খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন।

স্পষ্ট বলেন, ‘কাশ্মীরিদের হয়ে কথা বলার কোনও নৈতিক অধিকার নেই পাকিস্তানের৷’ এখানেই শেষ নয়, তিনি আরও বলেন, ‘আগে নিজের দেশের সংখ্যালঘুদের সামাজিক অধিকার রক্ষা করুক পাকিস্তান৷’ এখানেই শেষ নয়, কাশ্মীর ইস্যুতে মঙ্গলবার উত্তাল হয়েছে পাক পার্লামেন্টও৷ শুরুতেই সরকারের বিরুদ্ধে সুর চড়ান বিরোধীরা৷ ইমরানের অনুপস্থিতি নিয়েও সরব হন তাঁরা৷

আরও পড়ুন