যে কারণে দ্রুত বিয়ে করেন মিরাজ

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ খেলে দেশে ফেরার পর রাবেয়া আক্তার প্রীতিকে প্রথম দেখেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তারিখটা ছিল ২০১৪ সালের ২৮ মার্চ। প্রথম দেখাতেই বান্ধবীকে বিয়ে করার পণ করে বসেন মিরাজ। গল্পের শুরু তখন থেকে। এরপর মাঝে কেটে যায় অনেকটা সময়। জাতীয় দলের দায়িত্ব আর নানা ব্যস্ততার মধ্যে শেষ পর্যন্ত চলতি বছর ২১ মার্চ বান্ধবী প্রীতির সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধলেন এই স্পিন অলরাউন্ডার।

সম্প্রতি গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মিরাজ বলেন, আসলে খেলার জন্য সবসময় তো সময় পেতাম না। প্রেমের শুরু থেকেই খেলার মাঝে বেশি থাকতাম । যার কারণে তেমন কোনো স্মরণীয় স্মৃতি নেই। তবে প্রায় ওর সঙ্গে দেখা করতে খুলনায় যেতাম। ভালো লাগত যখন এত দূর থেকে ওর সঙ্গে দেখা করতে যেতাম। আর প্রেম করলে তো সবারই কষ্ট করতে হয়। কিন্তু আমার উপর হয়তো আল্লাহর রহমত ছিল তাই আমার বেশি কষ্ট করতে হয়নি। অল্পতেই প্রেমে সফল হয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আমি সবসময় ক্রিকেটকে ভালোবাসি। তাই ক্রিকেটে মনোযোগ দিতে হুট করে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেই। পরিবারও চেয়েছে তাই আর দেরি না করে বিয়ে করে ফেলি। মূলত ক্রিকেট থেকে যেন দূরে না যাই সেই জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেই। যেন সবসময় ক্রিকেটে মনোযোগ দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন