সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে প্রবাসে ভোটার করতে চায় ইসি

সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকেই সিঙ্গাপুরে প্রবাসী বাংলাদেশীদের ভোটার করতে চায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তবে সিঙ্গাপুরের অনুমতির জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে। এখন তাদের অনুমতির অপেক্ষায় ইসি।

মঙ্গলবার (২৭ আগস্ট) নির্বাচন কমিশন (ইসি) মো. আলমগীর নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। এখন কেবল সিঙ্গাপুর সরকারের অনুমোদন দেওয়া বাকি। তারা অনুমোদন দিলেই আমরা কাজ শুরু করবো।

মো. আলমগীর বলেন, সিঙ্গাপুরে প্রবাসীদের সংখ্যা কম। কাছের দেশ। তাই এখানে পরীক্ষামূলক কার্যক্রম চালানো হবে। এরপর আমরা মধ্যপ্রাচের দিকে যাবো। ইতোমধ্যে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা সৌদি আরবে এ বিষয়ে সম্ভাবতা যাচাই করে এসেছেন। সেখানে অবস্থিত প্রবাসী, দূতাবাসের সঙ্গে তিনি আলোচনা করেছেন। তাদের পক্ষ থেকে ব্যাপক আগ্রহের কথা জানানো হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা আইন পরীক্ষা করে দেখেছি। কোথাও সাংঘর্ষিক অবস্থা নেই। আমরা আজকের বৈঠকে নীতিমালা চূড়ান্ত করেছি। এজন্য আমাদের বিধিমালাও সংশোধন করতে হবে। এটা আমরা শিগগিরই করে ফেলবো।

ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, প্রবাসীদের সমস্যা দ্রুত সমাধানের লক্ষ্যে নীতিমালাই কেবল বাকি আছে। অন্যান্য প্রায় সকল কার্যক্রম আগেই সম্পন্ন করা হয়েছে। সিঙ্গাপুর, মালদ্বীপ, বৃটেন, সৌদি আবরে ইতোমধ্যে সম্ভবতা যাচাই শেষ হয়েছে।

ইসির এনআইডি অনুবিভাগের পরিচালক (অপারেশন্স) মো. আবদুল বাতেন বলেছেন, প্রবাসীদের এনআইডি দেওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন নেওয়া হবে। যারা অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন না, তারা সংশ্লিষ্ট দূতাবাসে বসানো ডেস্ক থেকে এ সংক্রান্ত সহায়তা পাবেন। নীতিমালা হয়ে গেলেই এ কার্যক্রম শুরু করা হবে। দীর্ঘদিন ধরেই প্রবাসী বাংলাদেশীরা এনআইডি সংক্রান্ত নানা সমস্যায় ভুগছেন। তাদের সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের নির্দেশনার পর প্রবাসেই দূতাবাসের মাধ্যমে এনআইডি সরবরাহের উদ্যোগ নিয়েছে ইসি।

আরও পড়ুন