সৌদিতে নামাজের সময় দোকান খোলা রাখার নির্দেশ

সৌদি আরবে নামাজের সময়েও দোকান খোলা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দেশটিতে হওয়া নতুন আইনে এই অনুমোদন দেয়া হয়েছে। তবে আগের আইন অনুযায়ী, সেখানে নামাজের সময় কোনো দোকান খোলা রাখলে মালিককে তিন দিন জেল খাটতে হতো।

জানা গেছে, ‘কর্তৃপক্ষকে আর্থিক ভাতা প্রদানের বিনিময়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখা যাবে’ এই মর্মে গত মাসে নতুন এক নির্দেশনা জারি করেছে সৌদি সরকার।

এর আগে সৌদি ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদিন ধরে নামাজের সময় সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান একেবারে বন্ধ করে দেয়ার বিষয়ে নতুনভাবে চিন্তা করার দাবি জানিয়ে আসছিলেন। এরই প্রেক্ষিতে সৌদি সরকার নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, চাইলে নামাজের সময়ও দোকানপাট চালু রাখা যাবে। সেক্ষেত্রে কিছু টাকা দিতে হবে। তবে এ নির্দেশনা জারির প্রথম দিকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের সময় প্রতিষ্ঠান চালু রাখতে পারবে কিনা এ নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছিল।

এদিকে দেশটির বিশ্লেষকরা বলছেন, এ নির্দেশনার মাধ্যমে যদি নামাজের সময় দোকানপাট বন্ধ রাখার আইন উঠে যায়, তাহলে এটি সৌদি আরবের রক্ষণশীল পরিবেশে একটি উদার সংস্কার বলে বিবেচিত হবে। দেশে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে সৌদি সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মনে করছেন তারা।

দেশটির গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, নামাজের সময় দোকান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তে দুইটা শ্রেণি তৈরি হয়েছে। যারা নামাজের সময় অর্থাৎ ২৪ ঘণ্টা দোকানপাট খোলা রাখার পক্ষে তারা বলছেন, এতে সার্বক্ষণিক বাজার করার লোকদের সুবিধা হবে। সেই সঙ্গে ব্যবসা বাড়বে।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নতুন এ নির্দেশনার ফলে ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখতে হলে প্রতিটি প্রতিষ্ঠান বাবদ ১ লাখ রিয়াল খরচ করতে হবে, যার পরিমাণ প্রায় ২৭ হাজার মার্কিন ডলার।

যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ক্ষমতায় বসার পর থেকেই বিভিন্ন সামাজিক পরিবর্তনের ভেতর দিয়ে যাচ্ছে সৌদি আরব। দেশকে তেলের ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে বিদেশি বিনিয়োগ ছাড়াও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য প্রসারে ইতোমধ্যেই অনেক উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, এছাড়া যুবরাজের কথিত ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নে দেশের শ্রমবাজারে নারীদের সম্পৃক্ত করতেও বিধিনিষেধে সংস্কার আনা হচ্ছে। এই ভিশনের অংশ হিসেবেই দেশটির সবচেয়ে বড় তেল কোম্পানি আরামকোতে সম্প্রতি একজন নারী উপদেষ্টা নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন