স্ত্রীকে অপমান করায় লিয়াজোঁ অফিস উড়িয়ে দিয়েছেন কিম?

স্ত্রীর বিকৃত ছবি দেখেই ক্ষিপ্ত হয়েছিলেন কিম জং উন। জানা যায়, দক্ষিণ কোরিয়া থেকে পাঠানো পিয়ংইয়ংবিরোধী বেলুন বার্তায় স্ত্রীর বিকৃত ছবি দেখে ক্ষিপ্ত হয়েছিলেন তিনি। এর প্রতিক্রিয়ায় সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে স্থাপিত যৌথ লিয়াজোঁ অফিস গুঁড়িয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। খবর ডেইলি মেইলের।

খবরে বলা হয়, শুধু তা-ই নয়, এর জেরেই সিউলে সামরিক হামলা চালানোরও হুমকি দেওয়া হয়েছে। উত্তর কোরিয়ায় নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূতকে উদ্ধৃত করে রাশিয়ার বার্তা সংস্থা তাস-এর প্রতিবেদনে এমন দাবি করা হয়েছে।

বছরের পর বছর ধরে পক্ষত্যাগ করে দক্ষিণ কোরিয়ায় চলে যাওয়া উত্তর কোরীয় নাগরিক ও দক্ষিণের অ্যাক্টিভিস্টরা উত্তরের শাসনব্যবস্থা ও এর নেতাদের সমালোচনা করে বেলুনের মাধ্যমে বার্তা পাঠিয়ে আসছে। সম্প্রতি এ নিয়ে উত্তেজনার জেরে দক্ষিণের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করেন উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উন। তার বোন কিম ইয়ো জং সর্বসম্মুখেই দক্ষিণ কোরিয়াকে ‘শত্রু’ বলে উল্লেখ করেন। দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ চালাতে স্থাপন করা যৌথ লিয়াজোঁ অফিসও গুঁড়িয়ে দেয় উত্তর কোরিয়া।

তাস-এর প্রতিবেদন উদ্ধৃত করে ডেইলি মেইল জানায়, গত ৩১ মে দক্ষিণ কোরিয়ার দিক থেকে কিছু বেলুন বার্তা আসার পরই লিয়াজোঁ অফিস গুঁড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন কিম।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, এ বিষয়ে উত্তর কোরিয়ায় নিয়োজিত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার মাতসেগোরা রুশ সংবাদমাধ্যম তাসকে জানান, ওইদিন লিফলেটের সঙ্গে কিছু ছবিও আসে। ছবিগুলো কিমের স্ত্রী রি সুল জুর। ফটোশপে বিকৃত করা সেই ছবি দেখেই ক্ষিপ্ত হন কিম।

আলেকজান্ডার জানান, স্ত্রীকে অপমান করে এমন বিকৃত ছবি পাঠানোয় ক্ষেপে গিয়েই কিম গত ১৬ জুন লিয়াজোঁ অফিস বোমায় উড়িয়ে দেন।

 

আরও পড়ুন