স্বাধীনতার মাসেও পরাধীনতার চক্রান্তে বিএনপি-জামায়াত: বাহাউদ্দিন নাছিম

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত সব সময় দেশের বিরুদ্ধে চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্র করে। স্বাধীনতার মাসেও তাদের পরাধীনতার চক্রান্ত থেমে নেই। বিদেশী প্রভুরা জোর করে তাদের ক্ষমতায় বসিয়ে দেবে ভেবে তারা বিদেশী প্রভুদের বাড়িতে বাড়িতে যাচ্ছে, দূতাবাসে ধারণা দিচ্ছে। তারা বিদেশি প্রভুর মাধ্যমে ক্ষমতায় বসতে চায়। রবিবার সকালে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, বিএনপি-জামায়াত জনগণের ক্ষমতায় বিশ্বাস করে না। তারা জনগণের স্বার্থ, দেশের স্বার্থ না ভেবে বিদেশি প্রভুদের কাছে ধরণা দেয়, অপপ্রচার চালায়, দেশের বিরুদ্ধে নালিশ দিয়ে বাংলাদেশকে, বাংলাদেশের মানুষকে  অপমানিত করে। তাদের উপর জনগণ  আস্থা হারানোয় তারাও জনগণের উপর আস্থা রাখে না। জনগণের আস্থা কখনো পাবে না বুঝতে পেরে তারা এখন ষড়যন্ত্রের রাজনীতি করছে।

তিনি বলেন, এরা বাংলাদেশের গনতন্ত্রকে হত্যা করেছে। এরা মানুষের ভোটের অধিকারকে কেড়ে নিয়েছিলো, এরা হ্যাঁ -না ভোটের মাধ্যমে ১০০ শতাংশের উপর ভোট কাষ্ট করে রেকর্ড সৃষ্টি করেছিলো। এরাই আবার বড় বড় কথা বলে। ভূতের মুখে যেমন রাম নাম শোভা পায় না তেমনি এ অপশক্তির মুখে গনতন্ত্রের কথা মানায় না।

 

বাহাউদ্দীন নাছিম বলেন, বিএনপি জামাত একসময় যে অপকর্ম করেছে, দুর্নীতি করেছে, লুটপাট করেছে, সন্ত্রাসের রাজত্ব  – গডফাদারদের রাজত্ব কায়েম করেছে জনগণ তা ভুলে যায়নি। ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের মর্যাদা ও সন্মান যাদের কাছে নেই, ২ লক্ষ মা বোনের ইজ্জতের মূল্য যাদের কাছে নেই সেই বিএনপি বাংলাদেশ বিরোধী অপশক্তিতে পরিনত হয়েছে।  তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী নয়। বিএনপি জামাত সাম্প্রদায়িক রাজনীতিকে ধারণ করে, লালন পালন করে। তারা লবিস্ট নিয়োগ করে, পিআর ফার্ম নিয়োগ করে বাংলাদেশ বিরোধী অপপ্রচার করে। বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য উন্নয়ন অগ্রগতি তারা থামিয়ে দিতে চায়।

আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি জামাত বাংলাদেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য ধ্বংস করে দিতে চায়। এরা বাংলাদেশের মানুষের মাঝে সম্প্রীতি নষ্ট করে পাকিস্তানি তালেবানি শাসন কায়েম করতে চায়। ধর্ম নিয়ে যারা রাজনীতি করে, নিজেদের স্বার্থে – গোষ্ঠীর স্বার্থে যারা রাজনীতি করে তাদের মোকাবেলা করা ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগের জন্য কঠিন কিছুই নয়। তাই সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, আমাদের ঐক্য, আমাদের আদর্শ হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা আমাদের নেত্রী। আজ বাংলাদেশ বিশ্বে এক রোল মডেল, বাংলাদেশে এখন আর ক্ষুদা বা দারিদ্র্য যুক্ত দেশ নয়, ভিক্ষুকের দেশ নয়। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশ, বাংলাদেশ এখন এগিয়ে যাচ্ছে, আমাদের দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। দেশে একজন মানুষও ক্ষুধার জ্বালায় মারা গেছে এমন উদাহরণ কোথাও নেই। এটাই হলো শেখ হাসিনার রাজনীতি। এ রাজনীতির কারনে বাংলাদেশ আজ ঘুরে দাঁড়িয়েছে। বিশ্বের অনেক দেশ এখন বাংলাদেশ থেকে শিক্ষা নিতে আসে, কিভাবে এত অল্প সময়ে একটা দেশ এত উন্নত হতে পারে সেটা জানতে চায়। আমাদের দক্ষতা আমাদের আরো উপরে নিয়ে যাবে। আমারা দেশের মানুষকে ভালোবাসি, দেশের ১৭ কোটি মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তের মধ্যে দিয়ে ২০৪১ সালের মধ্যে আমরা হবো সমৃদ্ধশালী দেশ ও সমৃদ্ধ শালী জাতি।

তিনি বলেন,  আমাদের দক্ষতা, আমাদের সততা, আমাদের সাহসিকতা আমাদের বলিষ্ঠ করবে। বিএনপি-জামায়াতের অপশক্তিকে মোকাবেলা করার জন্য জন্য জনগণই যথেষ্ট, আমাদের কোন বিদেশী প্রভুর প্রয়োজন নেই। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জনগণের সমর্থন নিয়ে আমরা বিজয়ী হতে চাই, এই অপরাজনীতিকে চিরতরে বিদায় করতে চাই।

বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাংসদ ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর সভাপতিত্বে এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবিরের সঞ্চালনায় বর্ধিত সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন। এছাড়া অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য আনিসুর রহমান ও মোঃ গোলাম রব্বানী চিনু।

বর্ধিত সভায় বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদ, জেলার অন্তর্গত সকল সাংগঠনিক উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকগণ, দলীয় সংসদ সদস্যগণ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যগণ, উপজেলা পরিষদের দলীয় চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানগণ, পৌরসভার দলীয় মেয়রগণ, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

আরও পড়ুন