৩ মডেলের অটোমেটিক ওয়াশিং মেশিন যুক্ত হলো ওয়ালটনে

নতুন ৩ মডেলের অটোমেটিক বা স্বয়ংক্রিয় ওয়াশিং মেশিন বাজারে ছাড়লো দেশীয় ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট ওয়ালটন। ৬, ৭ এবং ৯ কেজি ধারণক্ষমতার ওই ওয়াশিং মেশিনগুলো ফ্রন্ট লোডিং সুবিধার। এ ট্রিপল প্লাস এনার্জি এফিশিয়েন্সিযুক্ত মেশিনগুলো পরিবেশবান্ধব এবং ব্যাপক বিদ্যুৎসাশ্রয়ী।

 

শনিবার (২৭ জুলাই ২০১৯) রাজধানীর বসুন্ধরায় ওয়ালটন করপোরেট অফিসে নতুন ওয়াশিং মেশিনগুলো উন্মোচন করা হয়। ‘লঞ্চিং সিরিমনি অব ইকো ফ্রেন্ডলি ওয়াশিং মেশিন’ শীর্ষক ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক নজরুল ইসলাম সরকার, মোহাম্মদ রায়হান ও ড. মো. সাখাওয়াৎ হোসেন, ডেপুটি অপারেটিভ ডিরেক্টর মুজাহিদুল ইসলাম, হোম অ্যাপ্লায়েন্স-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম, এডিশনাল ডিরেক্টর খায়রুল বাশার প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ রায়হান বলেন, অনেকের ধারণা এসি এবং ওয়াশিং মেশিন উচ্চবিত্তের পণ্য। এগুলোতে বিদ্যুৎ খরচ বেশি হয়। আসলে এ ধারণা মোটেও সঠিক নয়। বর্তমানে সব শ্রেণীর মানুষের কাছেই এগুলো প্রয়োজনীয় পণ্য হয়ে উঠেছে। আর প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় বর্তমানে এসব পণ্যের বিদ্যুৎ খরচ অনেক কমে এসেছে। আমরা জানি, টাইম ইজ মানি। প্রচলিত পদ্ধতিতে কাপড় ধোয়া ও শুকানোতে যে বিপুল সময় ও পরিশ্রম ব্যয় হয়, তা থেকে সহজেই মুক্তি দেবে ওয়ালটনের ওয়াশিং মেশিন।

 

ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্স-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম বলেন, ক্রেতাদের চাহিদা ও ক্রয়ক্ষমতার বিবেচনায় অত্যাধুনিক ফিচারে সাজানো নতুন এই ওয়াশিং মেশিনগুলো তৈরি হয়েছে বাংলাদেশে ওয়ালটনের নিজস্ব কারখানায়। যা আধুনিক ও স্মার্ট গৃহিনীদের ঝামেলাহীন ঝটপট কাপড় ধোয়া ও শুকানোর সুবিধা দেবে। এ মেশিন ব্যবহার অত্যন্ত সহজ। পানি ও বিদ্যুৎ খরচও অনেক কম। ৬ সদস্যের একটি পরিবারের কাপড় ধোয়া ও শুকানোতে মাসে মাত্র ১৫০ টাকা বিল আসবে।

ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের হেড অব আরএনডি খায়রুল বাশার জানান, নতুন এই মেশিনগুলোয় ব্যবহৃত হয়েছে তৃতীয় প্রজন্মের কনভেক্স হানিকম্ব ইনার ড্রাম। রয়েছে বিল্ট-ইন ইনার হিটার। ফলে মডেলভেদে ৯০ থেকে ৯৫ ডিগ্রি পর্যন্ত গরম পানি ব্যবহার করা যাবে। এতে অতিরিক্ত ময়লা কাপড় সহজেই পরিষ্কার হবে।

এগুলোর অন্যান্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে এস-টাইপ ওয়াশিং লিফটার, ১৪০ ডিগ্রি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল এন্টি-ব্যাকটেরিয়াল ডোর, চাইল্ড লক এবং সাউন্ড অফ ফাংশন, ওভারহিটিং কন্ট্রোল, ফাজি লজিক, লিন্ট ফিল্টার সুবিধা, এলসিডি ডিসপ্লে ইত্যাদি। ৯ কেজি মডেলটি ইনভার্টার টেকনোলজির। যা ৪০ শতাংশ পর্যন্ত বিদ্যুৎ সাশ্রয় করে।

নতুন এই ৩ মডেলের ফ্রন্ট লোডিং অটোমেটিক ওয়াশিং মেশিন ছাড়াও বর্তমানে বাজারে রয়েছে আরো ৩ মডেলের সেমি অটোমেটিক এবং ৭ মডেলের অটোমেটিক ওয়াশিং মেশিন। ৭.৫ কেজি থেকে ৯ কেজি ধারণক্ষমতার ওয়ালটনের সেমি অটোমেটিক ওয়াশিং মেশিনের দাম ১৩,০০০ থেকে ১৪,০০০ টাকা। আর ৬ থেকে ১২.৫ কেজি ধারণক্ষমতার ওয়ালটনের অটোমেটিক মেশিন পাওয়া যাবে ২২,০০০ থেকে ৪৫,০০০ টাকায়।

মাত্র ৯৯৯ টাকা ডাউন পেমেন্ট দিয়ে সব ধরনের ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন কিস্তিতে কেনার সুযোগ রয়েছে। এছাড়াও, জিপি স্টার গ্রাহকদের জন্য ১০ শতাংশ ছাড়ে ওয়াশিং মেশিন কিনতে পারবেন।

ওয়াশিং মেশিনের বিক্রয়োত্তর সেবায় মটরের জন্য ৫ বছরের ওয়ারেন্টি দিচ্ছে ওয়ালটন। অন্যান্য অংশের জন্য থাকছে ৩ বছরের ওয়ারেন্টি। বিক্রয়োত্তর সেবায় ৫ বছর পর্যন্ত হোম সার্ভিস দেয়া হয়, যার প্রথম বছরটি গ্রাহক সম্পূর্ণ বিনামূল্যে সেবা পান।

আরও পড়ুন