৭ লাখ ডলারের বিনিময়ে দাহলানকে চায় তুরস্ক

ফিলিস্তিনের নির্বাসিত রাজনীতিবিদ এবং সাবেক ফাতাহ নেতা মোহাম্মদ দাহলানকে সন্ত্রাসী তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক। তাকে গ্রেফতারে তথ্যগত সহায়তার জন্য ৭ লাখ ডলার খরচ করবে বলেও জানিয়েছে দেশটি।

তিনি বর্তমানে আরব আমিরাতে অবস্থান করছেন।

শুক্রবার তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলায়মান সোইলু দেশটির হুররিয়াত পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, তুরস্কে ব্যর্থ অভ্যুত্থানে সংশ্লিষ্ট থাকার কারণে তুর্কি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মোহাম্মদ দাহলানের নাম সন্ত্রাসবাদের কালো তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করবে।

তাকে গ্রেফতারে সহায়তা ও তথ্য সরবরাহকারীদের জন্য প্রায় ৭ লাখ ডলার পুরস্কার নির্ধারিত হয়েছে বলেও জানান তিনি। খবর আল জাজিরা আরবির।

তুরস্ক সাবেক ফাতাহ নেতা মোহাম্মদ দাহলানকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের হয়ে কাজ করা এবং প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগানের বিরুদ্ধে ২০১৬ সালের অভ্যুত্থানের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ করেছে।

আলজাজিরার সঙ্গে একান্ত সাক্ষাত্কারে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু মোহাম্মদ দাহলানকে একজন সন্ত্রাসী এবং ইসরাইলের এজেন্ট হিসেবে অভিহিত করেছেন।

তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ‘একজন সন্ত্রাসবাদী আশ্রয় দেওয়ার জন্য’ অভিযুক্ত করে সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘দাহলান আপনাদের কাছে পালিয়ে গেছে কারণ সে ইসরাইলের একজন এজেন্ট।’

২০০৭ সালে দাহলান নবনির্বাচিত হামাস সরকারের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থানে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। পরিণামে তিনি গাজা ছাড়তে বাধ্য হন।

২০১৬ সালে ফিলিস্তিনের একটি আদালত দাহলানের অনুপস্থিতিতে দুর্নীতির দায়ে তাকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেয় এবং ১৬ মিলিয়ন ডলার জরিমানা করে।

আরও পড়ুন