নিউজিল্যান্ডে চার বাংলাদেশি নিহত

advertisement

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জানান, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার ঘটনায় চার বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। এ সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন তিনি। রবিবার সংবাদ সংস্থা ইউএনবিকে এ তথ্য জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, হামলায় দুই বাংলাদেশি নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে নিউজিল্যান্ড কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া স্থানীয়দের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী আরও দুই বাংলাদেশির নিহত হওয়ার বিষয়টি জানা গেছে।

এ পর্যন্ত শনাক্ত হওয়া নিহত দুই বাংলাদেশি হলেন- বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ড. আবদুস সামাদ ও সিলেটের হোসনে আরা আহমেদ।

এদিকে নিউজিল্যান্ডের এক কর্মকর্তা জানান, নারায়ণগঞ্জের মো. ওমর ফারুক ও চাঁদপুরের মোজাম্মেল হক এখনো নিখোঁজ রয়েছেন। এছাড়া নরসিংদীর জাকারিয়া ভুঁইয়াও নিখোঁজ রয়েছেন।

তবে জাকারিয়ার বাবা আব্দুল বাতেন ভূঁইয়া দাবি করছেন, শুক্রবার জুমার নামাজ পড়তে আল নূর মসজিদে গিয়ে ছিলেন তার ছেলে। এরপর তার এক সহকর্মী ফোন করে জানায়, সেখানের এক মসজিদে গোলাগুলি হয়েছে। এতে জাকারিয়া গুরুত্বর আহত হয়েছে। এর কিছুক্ষণ পরে আবার খবর আসে জাকারিয়া আর নেই।

শাহরিয়ার আলম জানান, নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের অনারারি কনসাল শফিকুর রহমানের মোবাইলে (+৬৪ ২১০২৪ ৬৫৮১৯) যোগাযোগ করতে পারেন স্বজনরা। এ ছাড়া (+৬১ ৪২৪ ৪৭২৫৪৪ এবং +৬১ ৪৫০১৭৩০৩৫) এই দুটি জরুরি নম্বরেও যোগাযোগ করা যাবে।

প্রতিমন্ত্রী জানান, নিউজিল্যান্ড সরকার বাংলাদেশকে জানিয়েছে, দেশটিতে নিহত বাংলাদেশিদের লাশ নিজ বাড়িতে ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য একজন করে স্বজনকে বাংলাদেশ থেকে নিয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার জুমার নামাজের সময় ক্রাইস্টচার্চের দুইটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা হয়। এতে ৫০ জন মারা যান। দ্যা টেলিগ্রাফের খবরে বলা হয়, হামলাকারী নিজেকে ব্রেনটন ট্যারেন্ট বলে পরিচয় দিয়েছেন। তিনি অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক। ২৮ বছর বয়সী একজন শ্বেতাঙ্গ। তাকে গ্রেফতার করে আদালতে তোলা হয়।

You might also like

advertisement