ছেঁউড়িয়ায় তিনদিন ব্যাপী বাউল লালন সাধুসঙ্গ

হাসিবুর রহমান কুষ্টিয়া প্রতিনিধিঃ

advertisement

কুষ্টিয়ার ছেঁউড়িয়া আঁখড়া বাড়ীতে শুরু হচ্ছে বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহের তিন দিন ব্যাপী দোলৎসব ও সাধুসঙ্গ। এ উপলক্ষ্যে মাজার প্রাঙ্গনে আসতে শুরু করেছে ভক্ত সাধু, লালন অনুসারী, আর দর্শনার্থীরা। ২০ মার্চ থেকে ২২ মার্চ পর্যন্ত তিনদিন ব্যাপী উৎসবকে কেন্দ্র করে লালন আঁখড়াবাড়িতে ইতিমধ্যেই সকল প্রস্তুতি শেষ হয়েছে।

মাজারকে সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে। শেষ হয়েছে মাজার প্রাঙ্গন ধোয়া-মুছার কাজও। ভেতরে বসেছে বাউল ফকিরদের আসর আর কালি নদীর পাড়ে চলছে বিশাল মেলার প্রস্তুতি। এছাড়াও মূল মঞ্চ প্রস্তুত করা হয়েছে আলোচনা সভা এবং রাতভর লালন গানের জন্য। ভাববাদী লৌকিক ধর্মের স্রষ্টা বাউল সম্রাট ফকির লালন সাাঁই। তাঁর জীবদ্দশায় এমন ফাল্গুনের জোস্নালোকের রাত্রিতে বসতো দোলপুর্ণিমা উপলক্ষে সাধুসঙ্গ।

এই উৎসবের একটা ভিত্তি হচ্ছে ঠিক এমনি এক দোলের দিনে লালন সাঁইজির আবির্ভাব ঘটেছিলো ছেঁউড়িয়ার কালী নদীর ঘাটে। সাঁইজী তার জীবদ্দশায় এই সাধুসঙ্গ করতেন। এই সাধুসঙ্গ ৫ঘর নিয়ে করতেন লালন সাঁইজি।সাাঁইজির নিজের ঘর, দেলবার সাঁই, চৌধুরী সাঁই, পাঞ্জু সাঁই ও মহিম সাঁইজির এক ঘর নিয়ে সাঁইজির সাধু সংঘের ধারা অনুসারে তার ভক্ত ও অনুসারীগণ এই ধারায় প্রতিবছরই দোলপূর্নীমাতে সাধুসঙ্গ করতেন।সেই ভাববাদি পরম্পরা চলছে এখনও।

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয় এবং কুষ্টিয়া জেলাপ্রশাসন এর সহযোগীতায় ও লালন একাডেমীর আয়োজনে উৎসব সম্পন্ন করতে সকল প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই আসতে শুরু করেছেন সাধু ভক্তরা। লালন অনুসারি বলেন, ভক্তবৃন্দসহ জনসাধারনের নিরাপত্তা এবং অনুষ্ঠানটি শান্তিপূর্ন ও নির্বিঘ্নে করার জন্য জেলাপ্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন যৌথ ভাবে ব্যবস্থা গ্রহন করেছে।প্রায় শেষ হয়েছে লালন মঞ্চ সাজসজ্জার কাজ।

লালন মেলাকে কেন্দ্র করে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আগত দোকানীরা পসরা সাজাতে এখন দিন-রাত কাজ করছে কালী নদীর বিস্তীর্ণ জায়গা জুড়ে। মোঃ আসলাম হোসেন, জেলাপ্রশাসক কুষ্টিয়া ও সভাপতি লালন একাডেমি বলেন, লালনের মানবতাবাদ ও অসাম্প্রদায়িকতা সামগ্রিকভাবে প্রেরণা জুগিয়েছে ভক্তদের মাঝে। পাশাপাশি আধ্যাত্ম-সাধনার নিগুড় পদ্ধতি গুরু-শিষ্যদের মাঝে ছড়িয়ে পড়েছে তাঁর গানের মাধ্যমে।

তিনদিনের আয়োজনে এমন কথা ও অজানা তথ্য যেন জানতে পারে ভক্তরা। পাশাপাশি উৎসবে মানুষের মিলন-মেলা আরও জমবে এমনটিই প্রত্যাশা সকলের।

You might also like

advertisement