আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হচ্ছে রেডিয়েন্ট আইপি টিভি

advertisement

ইন্টারনেটে যুক্ত স্মার্টফোন কিংবা টেলিভিশনের মাধ্যমে সকল জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যানেল দেখা, ভিডিও অন ডিমান্ড ও বিভিন্ন অনুষ্ঠানের স্ট্রিমিং দেখার সুবিধা দিতে দেশে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হতে যাচ্ছে রেডিয়েন্ট আইপি টিভি। প্রায় ৬ বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রে চালু হওয়া জনপ্রিয় এই আইপি টিভি সেবা ইতিমধ্যেই দেড় শতাধিক টেলিভিশন চ্যানেল, রেকর্ডকৃত ভিডিও, মুভি, নাটক, সিরিয়াল ইত্যাদি নিয়ে বাংলাদেশের গ্রাহকদের পরীক্ষামূলকভাবে সেবা দিতে শুরু করেছে।

রেডিয়েন্ট আইপি টিভির বাংলাদেশের অপারেশন ম্যানেজার আতিকুর রহমান জানান, ‘সম্প্রতি টেলিকম নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি বাংলাদেশে স্ট্রিমিং সেবা, আইপি টিভি ও ভিওডি সেবা দেওয়ার পথ উন্মুক্ত করে দিয়েছে। আবেদনের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই এই সেবার জন্য লিখিত অনুমতিও মিলিছে। তাই শিগগিরই আনুষ্ঠানিকভাবে আমাদের এই সেবাটি চালু করা হবে’।

তিনি আরও জানান, ‘স্মার্টফোন ও স্মার্ট টেলিভিশনে রেডিয়েন্ট আইপি টিভির সেবা গ্রহণ করা যাবে। আগ্রহীরা গুগল প্লে স্টোর অথবা অ্যাপলের অ্যাপ স্টোর থেকে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারবেন। এতে ৩২টি বাংলাদেশি চ্যানেল, ১৫টি হিন্দি চ্যানেল, ১৫টি কিডস চ্যানেল, ৩০টি স্পোর্টস চ্যানেল, ১৩টি ভারতীয় বাংলা চ্যানেল, ৩০টি ইংরেজি চ্যানেল ও ১৭টি ইসলামিক চ্যানেলসহ ৭ দিনের ডিভিআর ও আনলিমিটেড ভিওডি রয়েছে’।

ওয়ালটনসহ দেশি টেলিভিশন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো আগামীতে তাদের টেলিভিশনে ডিফল্টভাবে রেডিয়েন্ট আইপি টিভি ইনস্টল করার বিষয়ে আগ্রহ জানিয়েছে বলেও জানান আতিকুর রহমান। কারণ আইপি টিভির ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় সুবিধা কোনো টেলিভিশন অনুষ্ঠান সময়মতো না দেখতে পারলে পরেও রেকর্ডকৃত ভিডিও দেখে নেওয়ার সুযোগ থাকে। বাংলাদেশে সচরাচর ক্যাবল টিভিতে ১শ’র কম চ্যানেল দেখা গেলেও রেডিয়েন্ট আইপি টিভির মাধ্যমে বর্তমানে দেড় শতাধিক চ্যানেল দেখার সুযোগ রয়েছে। আগামীতে আরও অনেক চ্যানেল যুক্ত করা হবে। বাংলাদেশের বাইরে রেডিয়েন্ট আইপি টিভির চ্যানেল সংখ্যা আড়াই শতাধিক।

You might also like

advertisement