টাইগ্রিস নদীতে ফেরি ডুবে নিহতের সংখ্যা ১০০

advertisement

ইরাকের মসুল শহরের টাইগ্রিস নদীতে ফেরি ডুবে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০০ জনে। ইরাকের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নিহতদের অধিকাংশই নারী এবং শিশু। বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) কুর্দিদের নতুন বছর নওরোজ উদযাপন শেষে বাড়ি ফেরার পথে প্রায় ২০০ যাত্রী নিয়ে ফেরিটি ডুবে যায়।

ফেরি ডুবির বিষয়ে মসুলের প্রতিরক্ষা দফতর জানায়, ফেরিতে থাকা অধিকাংশ লোকজনই সাতার জানতেন না। নিহতদের মধ্যে কমপক্ষে ১৯ শিশু এবং ৬১ জন নারী রয়েছেন। এদিকে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম এএফপিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বেঁচে যাওয়া এক যাত্রী বলেন, ‘ফেরিতে অনেক বেশি যাত্রী ছিল। এর কারণেই অনেক বেশি ভারী হয়ে উল্টে যায় ফেরিটি। আমি নিজের চোখে পানিতে মৃত শিশুদের দেখেছি’।

দুর্ঘটনার পর মসুল সিভিল ডিফেন্স কর্তৃপক্ষের প্রধান হুসাম খলিল জানান, ‘ফেরিডুবির ঘটনায় কমপক্ষে ৬০ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের অধিকাংশই নারী এবং শিশু; যারা সাঁতার জানতেন না। নওরোজ উদযাপন শেষে ওই নৌকাটিতে করে বাড়িতে ফিরছিলেন প্রায় ২০০ জন। ইরানে এই দিনটিকে ফার্সি নতুন বছর হিসেবে উদযাপন করা হয়’।

দুর্ঘটনার পর পরই বেঁচে ফেরা যাত্রীদের সাহায্য ও নিহতদের মরদেহ উদ্ধারে অভিযান চালানো হচ্ছে। উদ্ধার অচিযানের জন্য নিয়ে আসা হয়েছে হেলিকপ্টার এবং অ্যাম্বুলেন্স। উদ্ধার অভিযানে ৫৫ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হলেও এখনও নিখোঁজ রয়েছেন অনেকেই।

You might also like

advertisement