নিউইয়র্কে স্বাধীনতা প্যারেড উদযাপন বাংলাদেশের

advertisement

নিউইয়র্কের বাঙালি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসে স্বাধীনতা দিবস প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৪ মার্চ নিউইয়র্ক সময় সন্ধ্যা ৬টায় জ্যাকসন হাইটসের ডায়ভার্সিটি প্লাজায় থেকে শুরু হয় এই প্যারেড। যেখানে সর্বস্তরের প্রবাসীরা বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে অংশগ্রহণ করেন। রাস্তার দুপাশে যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় অধিবাসীরাও বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসকে স্বাগত জানায়।

বেলুন উড়িয়ে স্বাধীনতা দিবস প্যারেডের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দীন। তিনি বলেন, নিউইয়র্কের রাজপথে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের প্যারেড করে আপনারা দেশমাতৃকার প্রতি যে গভীর ভালোবাসা দেখালেন তা অবিশ্বাস্য। নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশের স্বাধীনতা প্যারেড স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী লগ্নে সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়বে বলে আমার বিশ্বাস।

মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালির চেতনা মঞ্চ আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন নিউইয়র্কের কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেছা। প্যারেডে অংশ নেন ৪৮ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা।

সভাপতির বক্তব্যে মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ড. জিয়াউদ্দীন আহমেদ বলেন, প্রবাসের বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্ম যেভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও বাংলা সংস্কৃতি অন্তরে লালন করে এই অনুষ্ঠানে যেভাবে তা প্রকাশ করেছে তা আশাপ্রদ। প্যারেড শেষে পাবলিক স্কুল ৬৯ মিলনায়তনে রণাঙ্গণে মুক্তিযুদ্ধ শিরোনামে সেমিনার, কবিতায়-আবৃত্তিতে মুক্তিযুদ্ধ, নৃত্যে-গানে গানে স্বাধীনতা ও স্বাধীনতা বিজয়কাব্য শিরোনামে গীতি আলেখ্য।

প্যারেডের আহ্বায়ক শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ফাহিম রেজা নূর বলেন, গত ৪ বছর ধরে আমরা স্বাধীনতা প্যারেড আয়োজন করে আসছি ২০২১ সালকে লক্ষ্য করে। স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর প্যারেডটি যাতে সর্বস্তরের সর্বোচ্চজ প্রবাসীদের অংশ্রগ্রহণে একটি মাইলফলক তৈরি করার প্রয়াস।

মুক্তধারা ফাউইন্ডেশনের সিইও বিশ্বজিত সাহার পরিকল্পনায় অনুষ্ঠানটি সমন্বয় করেন ফাউন্ডেশনের কার্যকরী কমিটির সদস্য সাবিনা হাই উর্বি। পরিচালনায় ছিলেন আব্দুর রহিম বাদশা, শুভ রায়, শেখ সোহেব সাজ্জাদ, ছাখাওয়াৎ আলী। প্যারেড ব্যবস্থাপনায় ছিলেন গোপাল সান্যাল।

You might also like

advertisement