থাইল্যান্ডের নির্বাচন অনিয়ম অভিযোগ তদন্তের দাবি যুক্তরাষ্ট্র।

advertisement

থাইল্যান্ডে সামরিক সরকার উত্খাত করতে একজোট হয়েছে বিরোধী দল। গতকাল বুধবার সাতটি বিরোধী দল এক হয়ে ডেমোক্র্যাটিক ফ্রন্ট গঠন করেছে। তারা সরকার গঠন করবে বলে দাবি করেছে। যদিও নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল এখনো প্রকাশ করেনি নির্বাচন কমিশন। এদিকে নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগের তদন্ত দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। খবর রয়টার্সের।

বিরোধী দলগুলো মনে করে, নিম্নকক্ষে তারা জয় পেয়েছেন। তাই সরকার গঠন করতে তাদের কোনো বাধা নেই। তবে এটা সহজ হবে না। বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী কে হবেন তা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে। কারণ নিম্নকক্ষ ও উচ্চকক্ষ মিলে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করেন। উচ্চকক্ষ সিনেটে যারা আছেন তারা সবাই সামরিক জান্তা সমর্থিত। ফলে তারা সামরিক সরকার সমর্থিত কাউকে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করবেন বলেই ধারণা। ৫ বছরের সামরিক শাসন শেষে গত রবিবার দেশটিতে পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রা সমর্থিত পিউ থাই পার্টির প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী সুদারাত কেউরাফান। তিনি জানিয়েছেন, বিরোধী সাতটি দল এক হয়েছে। ৫০০ আসনের নিম্নকক্ষে অন্তত ২৫৫টিতে জয় পেয়েছেন বলে দাবি করেছেন সুদারাত কেউরাফান। তার দাবি আমাদেরই সরকার গঠন করতে দেওয়া উচিত। জোটভুক্ত দলগুলো হচ্ছে-ফিউচার ফরোয়ার্ড, পিউ চার্ট, প্রচাচার্ত, সেরি রুয়াম থাই, থাই পিপল পাওয়ার এবং নিউ ইকোনোমিক পার্টি।

You might also like

advertisement