উইঘুর সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতন লজ্জাজনক

advertisement

সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের ২০ লাখেরও বেশি মানুষকে এক ধরনের বন্দীশিবিরে আটকে রেখেছে চীন। দেশটি মুসলিমদের ওপর গত কয়েক বছর ধরে নানা অত্যাচার করছে বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ও পশ্চিমা অনেক দেশ অভিযোগ তুলেছে। তবে এ ব্যাপারে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, এ ব্যাপারে তিনি বেশি কিছু জানেন না।

ফিন্যান্সিয়াল টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন পাকিস্তানের এ প্রধানমন্ত্রী। গত বুধবার সাক্ষাৎকারটি প্রকাশ করেছে ফিন্যান্সিয়াল টাইমস।

সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেন, সত্যি কথা আমি ওই সম্পর্কে তেমন কিছুই জানি।

বিশ্বে মুসলিম সম্প্রদায় অনেক খারাপ সময়ের মধ্যে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন ইমরান খান। কিন্তু সেসময় তিনি চীনে উইঘুর মুসলিমদের ওপর যে নির্যাতন চালানো হচ্ছে বিষয়টি এড়িয়ে যান।

সাক্ষাৎকারে ইমরান খান আরো বলেন, ব্যাপারটি সম্পর্কে আমার যথেষ্ট জানা থাকলে আমি এ ব্যাপারে কথা বলতাম। এছাড়া চীনে মুসলিমদের ওপর যে নির্যাতন চালানো হচ্ছে সে বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমে বেশি কোন খবর নেই বলে উল্লেখ করেন তিনি।

চীনে মুসলিমদের ওপর নির্যাতনের ব্যাপারে বরাবরই অভিযোগ করে আসছে তুরস্ক। দেশটি গত মাসে উইঘুর সম্প্রদায়ের ওপর এ নির্যাতনকে ‘মানবতার জন্য লজ্জাজনক’ বলে আখ্যা দেয়। একই সঙ্গে বন্দীশিবির বন্ধ করে দেয়ার আহ্বান জানায়।

এছাড়া অনেক পশ্চিমা দেশ মুসলিমদের ওপর নির্যাতনের কড়া নিন্দা জানায়। গত বছর জাতিসংঘ জানায়, মুসলিম গোষ্ঠী উইঘুরের ১০ লাখ মানুষকে আটক রেখেছে চীন।

চীনের অন্যতম বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত পাকিস্তান। পাকিস্তান চীন থেকে বিপুল পরিমাণে অর্থ সহযোগিতা নিয়ে আসছে।

You might also like

advertisement