ফেসবুকের জালিয়াতি

advertisement

আপনার যোগাযোগ করা কন্টাক্ট লিস্ট আপলোড করে নিয়েছে ফেসবুক। তারা অবশ্য বলছে, এটা অনিচ্ছাকৃত। তবে একজন নিরাপত্তা বিশ্লেষক দাবি করেছেন, ২০১৬ সালের মে মাসের পর থেকে নতুন ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ই-মেইল কন্টাক্ট লিস্ট আপলোড করেছে ফেসবুক। এখন পর্যন্ত ১৫ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীর কন্টাক্ট লিস্ট আপলোড করার কথা বলা হচ্ছে।

সম্প্রতি এক নিরাপত্তা গবেষক খেয়াল করেন, কিছু কিছু ফেসবুক ব্যবহারকারীর ক্ষেত্রে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ই-মেইলের পাসওয়ার্ড দিতে বলছে। নতুন অ্যাকাউন্ট খুলে তাদের পরিচিতি শনাক্ত করার সময় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ই-মেইলের পাসওয়ার্ড জানতে চাইছে। বিষয়টির ব্যাপক নিন্দা করছেন গবেষকেরা।

ব্যবসা ও প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট বিজনেস ইনসাইডারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কেউ যদি নতুন অ্যাকাউন্ট খোলার সময় ই-মেইল পাসওয়ার্ড দেন, তবে একটি বার্তা দেখতে পান যাতে কনটাক্ট লিস্ট স্থানান্তর করার জন্য অনুমতি চায় ফেসবুক।

এখন ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছেন, অনিচ্ছাকৃতভাবেই ওই কনটাক্ট লিস্ট আপলোড করা হচ্ছিল। এখন তা মুছে ফেলা হচ্ছে। ২০১৬ সালের আগে ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্ট নিশ্চিত করার ও কনটাক্ট স্বেচ্ছায় একই সময় আপলোড করার সুযোগ ছিল। পরে ফেসবুক ওই ফিচার পরিবর্তন করে। ফেসবুক এখন বলছে, তারা যে কনটাক্ট আপলোড করেছে, তা মুছে ফেলা হয়েছে। তবে এর পেছনের ফাংশন তা বলে না।

ফেসবুকের মুখপাত্র দাবি করেছেন, ব্যবহারকারীর মেইলের কনটেন্ট ফেসবুক পড়ে না বা সেখানে ঢুকতে পারে না। তবে যেকোনোভাবে হোক ১৫ লাখ অ্যাকাউন্টের কনটাক্ট লিস্ট আপলোড হয়ে গেছে।

বেশ কিছুদিন ধরে সমালোচনার মুখে থাকা ফেসবুকের জন্য প্রাইভেসি নিয়ে এটি আরেকটি বড় ধাক্কা হতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকেরা।

You might also like

advertisement