ইতালী কমিউনিটির কীর্তিমানদের স্বীকৃতি

কবির আল মাহমুদ,ভেনিস, ইতালী থেকেঃ

advertisement

ব্রিটেন, স্পেন ও বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত ‘বাংলা কাগজ’ এবার সম্মাননা জানালো ইতালী প্রবাসী বাংলাদেশী কৃতিজনদের। এ উপলক্ষে বাংলা নববর্ষের দিন ১৪ই এপ্রিল স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় সমুদ্র নগরীখ্যাত ইতালীর ভেনিসে অনুষ্ঠিত হয় এক জমকালো অনুষ্ঠান।

ভেনিসের চার তারকা হোটেল রাসট’র বলরুমে অনুষ্ঠিত এই এওয়ার্ড অনুষ্ঠানে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশী অংশ নেন। ভেনিস বাংলাদেশী কমিউনিটির ইতিহাসে এই প্রথম এত বড় কোনো অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

মরোক্ক ,স্পেন ও ফ্রান্সের পর এবার বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ইতালীর ২০ জন কমিউনিটি ব্যক্তিকে সন্মাননা প্রদান করে বাংলা কাগজ।
অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে ১৯ জন প্রবাসী বাংলাদেশি ও একজন ইতালীয়ানকে সম্মাননা পদক প্রদান করে বাংলা কাগজ। জীবিত কালে যিনি বাংলাদেশের জাতীয়তা লাভ করেন, এমন একজন ইতালিয়ান পান এবারের বাংলা কাগজ এওয়ার্ড। মৃত্যুর পর ইতালী থেকে নিয়ে গিয়ে বাংলাদেশে সমাহিত করা হয় এই বাংলা প্রেমী ইতালিয়ানের মরদেহ।

ব্যতিক্রমী এই এওয়ার্ড অনুষ্ঠানে বাংলা কাগজ পরিবারের অধিকাংশ সদস্যসহ যুক্তরাজ্য থেকে দুই শতাধিক বৃটিশ বাঙালী এবং ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে গণমাধ্যমকর্মীসহ কমিউনিটির শীর্ষ নেতৃবৃন্দ যোগ দেন।

বাংলা কাগজের নির্বাহী সম্পাদক রিয়াদ আহাদ ও ফেরদৌসী আক্তার পলির উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা বলেন, এই সম্মাননা ইতালীর নতুন প্রজন্মকে আরো ভালো কাজে উৎসাহিত করবে।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, বাংলা কাগজের ইতালি ব্যুরো প্রধান নাজমুল হোসেন,ভেনিস প্রতিনিধি সোহেল মিয়া ও রোম প্রতিনিধি লাবণ্য চৌধুরী। অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন, চ্যানেল এস চেয়ারম্যান আহমেদুস সামাদ চৌধুরী, কমনওয়েলথ জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নাহাস পাশা, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এমদাদুল হক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জোবায়ের, জনমত সম্পাদক নবাব উদ্দিন, আইওন টিভির রেজা আহমেদ ফয়সল চৌধুরী শুয়েব, সত্যবাণীর প্রধান সম্পাদক সৈয়দ আনাস পাশা, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাব সহসভাপতি তারেক চৌধুরী, সাপ্তাহিক দেশ সম্পাদক তাইসির মাহমুদ, টিভি ওয়ানের গোলাম রসুল, স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাহাদুল সুহেদ,সাধারন সম্পাদক আফাজ জনি এবং ফ্রান্স ও স্পেনসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত সাংবাদিকরা। অনুষ্ঠানে ইতালীর একজন পার্লামেন্ট সদস্য বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে বাংলা কাগজ পরিবারের সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাধারণ সম্পাদক খসরু খান,ডিরেক্টর রুহুল আমিন চৌধুরী, সৈয়দ কবির আহমেদ, আব্দুল কাদির, সুফিয়া আলম, মুজিবুল হক রাজু, মাসরুর আহমেদ হারুন, আব্দুল এম চৌধুরী সুমন ও শওকত হোসাইন। এওয়ার্ড অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে পুরো ইউরোপের বাংলা মিডিয়া সাংবাদিকদের এমন একটি বার্ষিক মিলন মেলা’র সুযোগ সৃষ্টি করায় অতিথি বক্তারা বাংলা কাগজ কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ইউরোপে এখন বাংলা সংবাদ ও সাংবাদিকতার জাগরণ কাল। আর এই জাগরণে নেতৃত্ব দিচ্ছে বাংলা কাগজ।

তারা বলেন, ব্রিটেনের সমৃদ্ধ কমিউনিটি ও ইউরোপের উদীয়মান কমিউনিটির মিলিত কর্মস্পৃহা এতদঞ্চলে বাংলা ভাষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের আরও ব্যাপক প্রসার ঘটাবে এমনটিই আমাদের বিশ্বাস। প্রবাসে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মের শিকড় সংযোগ সুদৃঢ় করতে ইউরোপ কমিউনিটির এই কর্মস্পৃহা ধরে রাখতে বাংলা কাগজ তাদের চলমান ভূমিকা অব্যাহত রাখবে এমন আশাবাদও ব্যক্ত করেন তারা।

বাংলা কাগজের আমন্ত্রণে লন্ডনসহ ইউরোপ বাংলা মিডিয়ার সিনিয়র সাংবাদিকরা ভেনিসে উপস্থিত হওয়ায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বাংলা কাগজের নির্বাহী সম্পাদক রিয়াদ আহাদ তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘আপনাদের সান্নিধ্য বাংলা কাগজের জন্য এক পরম পাওয়া। বার্ষিক এওয়ার্ড অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মূলত ইতালীতে বসবাসরত আমাদের কমিউনিটির বিভিন্ন অর্জন আমরা উদযাপন করে থাকি। আপনাদের উপস্থিতি কমিউনিটি স্বীকৃতি আদায়ের আমাদের এ প্রচেষ্ঠা আরও বেগবান করবে, এধরনের কাজে আমাদের স্পৃহা আরো বাড়াবে তাতে সন্দেহ নেই।
এওয়ার্ড দেয়ার মাধ্যমে কমিউনিটির উন্নয়নে ভূমিকা রাখার স্বীকৃতি যাদের দেয়া হয় তারা হলেন, চিকিৎসা বিজ্ঞানে ড: রাসেল মিয়া, কমিউনিটি উন্নয়নে মুজিবুর রহমান সরকার, সাংবাদিকতায় লুৎফুর রহমান, কমিউনিটি উন্নয়নে সৈয়দ কামরুল সারওয়ার, ব্যান্ডিং বাংলাদেশ টাটকা ব্র্যান্ড’র এমদাদুর রহমান চৌধুরী, ফ্রেন্ডস ইন বাংলাদেশ মারিনো রিগন, সফল ব্যবসায়ী ইকরাম ফরাজী, কুদ্দুস চৌধুরী, তাজুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, বরকত মৃধা, রিপন সরকার, কমিউনিটি সেবায় অলি উদ্দিন শামীম, কমিউনিটি নারী নেতৃত্বে হুসনেয়ারা বেগম, লায়লা শাহ, তরুণ প্রজন্মের নারী ডালিয়া আক্তার সুমি, ইউনিটি নেতৃত্বে ভেনিস বাংলা স্কুল, রোম সমিতি, শিশু প্রতিভায় অংকুর ও মরোনোত্তর লুৎফুর রহমান খান।

এওয়ার্ড প্রদান শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে লন্ডন , আমেরিকা ও ভেনিসের শিল্পিরা গান ও নৃত্য পরিবেশন করেন।
এওয়ার্ড প্রাপ্তরা তাদের প্রতিক্রিয়ায় এমন আয়োজনের প্রসংশার করে বলেন, সমাজ উন্নয়নে যারা কাজ করে এতে তারা উৎসাহ পাবে।
জমকালো এওয়ার্ড অনুষ্ঠানটি লাইভ সম্প্রচার করে লন্ডন ভিত্তিক অনলাইন টিভি চ্যানেল এলবিটিভি।

You might also like

advertisement