যুবলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ৫ জন গুলিবিদ্ধ

advertisement

বালু মহালের ইজারা আদায়কে কেন্দ্র করে রবিবার সন্ধ্যায় গফরগাঁও পৌর শহরে যুবলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পৌরসভা যুবলীগের যুগ্মআহ্বায়ক তাজমুন আহম্মেদসহ ৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। আহত হয়েছে আরো অন্তত ৬ জন।

জানা গেছে, রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে পৌর শহরের চাদনী মোড়ে ব্রহ্মপুত্র নদের বালুমহালের ইজারা আদায়কে কেন্দ্র করে উপজেলা যুবলীগের যুগ্মআহ্বায়ক আবু কাওসার ও উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মেহেদি হাসান সানিল গ্রুপের সাথে পৌরসভা যুবলীগের যুগ্মআহ্বায়ক তাজমুন আহম্মেদ গ্রুপের তর্ক-বিতর্ক এবং হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর জের ধরে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে পৌর শহরের জামতলা মোড়ে পৌরসভা যুবলীগের অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে তাজমুন গ্রুপের তাজমুন (৩২), হৃদয় (২৫), বিপুল (২৭), মোস্তাকিম (২০) ও তারাকে (২৫) রামদা দিয়ে কুপিয়ে ও গুলি করে গুরুতর জখম করে প্রতিপক্ষ।

এছাড়া অনীক (২০), সোহেল (২৩) রামদার কোপে আহত হন। এলোপাথারী পিটুনীতে আহত হয় আরো ৫/৬ জন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে পৌরশহরের কলেজ রোডে আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করে। আহতদের অবস্থার অবনতি হলে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গফরগাঁও আধুনিক হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মাহমুদুল হাছান শিমুল জানান, এই হাসপাতালে ভর্তিকৃত তাজমুন, হৃদয়, বিপুল, মোস্তাকিম গুলিবিদ্ধ। তাদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সংঘর্ষে পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বাবুল হাছানের মোটরসাইকেল আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয় এবং ৭/৮টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়। পৌরসভা যুবলীগের অস্থায়ী কার্যালয়ও ভাংচুর করা হয়। ঘটনার ৩০ মিনিট পর থানা পুলিশ এসে ভাংচুর করা মোটরসাইকেলগুলো উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। গফরগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ খান বলেন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

You might also like

advertisement