সমুদ্রে ব্যাপকভাবে অনুসন্ধান চালাতে হবে

advertisement

পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, বঙ্গোপসাগরের বিশাল জলরাশির নিচে প্রচুর সম্পদ রয়েছে। এসব সামুদ্রিক সম্পদ সম্পর্কে আমাদের পর্যাপ্ত ধারণা এবং তথ্য নেই। এসব সম্পদ আহরণের জন্য আমাদেরকে ব্যাপকভাবে অনুসন্ধান, জরিপ ও গবেষণা করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রুত প্রসারিত হচ্ছে। তাঁরই নেতৃত্বে আমরা জলে, স্থলে ও আকাশে সর্বত্র বিচরণ করছি। তিনি সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের লক্ষ্যে বিভিন্ন পরিকল্পনা ও প্রকল্প প্রণয়নের জন্য ঢাবির সমুদ্র বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক, গবেষক ও শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।

ঢাবির নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে বুধবার ‘ শীর্ষক দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন।

ঢাবি সমুদ্র বিজ্ঞান বিভাগ, গ্রিনটেক ফাউন্ডেশন, বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অফ মেরিটাইম রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্টের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এই সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাবি সমুদ্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. কাউসার আহাম্মদ।

এতে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকাস্থ জার্মান দূতাবাসের উপ-প্রধান মি. মাইকেল সুলথেইস, গ্রিনটেক ফাউন্ডেশন-এর নির্বাহী পরিচালক লুৎফর রহমান এবং সমুদ্র বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান মো. জোবায়ের আলম।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, আমাদেরকে টেকসই নীল অর্থনীতির মাধ্যমে দেশকে আরও উন্নতি ও সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। এজন্য আমাদের অর্থনীতির বিভিন্ন ক্ষেত্রসহ সামুদ্রিক সম্পদ অন্বেষণ ও আহরণ করতে হবে। তিনি এক্ষেত্রে ঢাবি সমুদ্র বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক, গবেষক ও শিক্ষার্থী এবং বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে একত্রে কাজ করার আহ্বান জানান।

সম্মেলনের দুটি আলাদা সেশনে উপস্থিত ছিলেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালেদ মাহমুদ চৌধুরী, এমপি এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু।

You might also like

advertisement