ট্রাম্পের সম্মান দেওয়া স্টেট ডিনারে যাবেন না

advertisement

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাজ্য সফরে গেলে তাঁর সম্মান দেওয়া রাষ্ট্রীয় ভোজে যাবেন না বলে জানিয়েছেন বিরোধী দল লেবার পার্টির প্রধান জেরমি করবিন। রাষ্ট্রীয় সফরে চলতি বছরের জুনে ট্রাম্পের যুক্তরাজ্য সফরের কথা রয়েছে। খবর রয়টার্সের।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের সফরসূচিতে তাঁর সম্মান দেওয়া ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের একটি নৈশভোজও আছে। ওই নৈশভোজের আমন্ত্রণ পেলেও তা ফিরিয়ে দিয়েছেন বলে শুক্রবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের করবিন। তিনি বলেছেন, ‘বর্ণবাদী ও নারীবিদ্বেষী কথা বলা, জলবায়ু পরিবর্তন প্রত্যাখ্যানকারীদের সমর্থন, গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক সব চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়া এক প্রেসিডেন্টের রাষ্ট্রীয় সফরে তাঁকে থেরেসা মের লাল গালিচা সংবর্ধনা দেওয়া উচিত হবে।

মার্কিন পররাষ্ট্র নীতির কট্টর সমালোচক করবিন সমপ্রতি জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে সমর্পণের বিপক্ষেও অবস্থান নিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের লাখ লাখ সামরিক ও কূটনীতিক নথি ফাঁস করে বিশ্ব জুড়ে হইচই ফেলে দেওয়া উইকিলিকসের এ প্রতিষ্ঠাতার বিরুদ্ধে কম্পিউটার হ্যাকিংয়ের অভিযোগ এনেছে মার্কিন কর্তৃপক্ষ। জামিনের শর্ত লঙ্ঘনের অভিযোগে যুক্তরাজ্যে এখন অ্যাসাঞ্জের বিচার চলছে।

করবিন বলেছেন, স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে ট্রাম্পের সঙ্গে যে কোনো বৈঠককে স্বাগত জানালেও ওয়াশিংটনের সঙ্গে মৈত্রতা টিকিয়ে রাখতে রাষ্ট্রীয় সফরের আনুষ্ঠানিকতার প্রয়োজন ছিল না।

জুনের ৩ থেকে ৫ তারিখের মধ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্টের যুক্তরাজ্য সফরের কথা রয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। নির্ধারিত সময়ে সফরটি অনুষ্ঠিত হলে, ট্রাম্প হবেন রানি এলিজাবেথের আমন্ত্রণ পাওয়া তৃতীয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এ ধরনের রাষ্ট্রীয় সফরে বিদেশি নেতাদের সাধারণত বাকিংহাম প্যালেসে রাখা হলেও প্রাসাদটির সংস্কারকাজ চলায় ট্রাম্প সেখানে থাকছেন না।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের যুক্তরাজ্য সফর নিয়ে নাগরিকদের একাংশেরও আপত্তি আছে। রাষ্ট্রীয় সফরে ট্রাম্পকে আমন্ত্রণ না জানাতে ২০১৭ সালে একটি অনলাইন পিটিশন খোলা হয়েছিল। ওই পিটিশনে স্বাক্ষরও পড়েছিল প্রায় ১৯ লাখ ব্রিটিশ নাগরিকের।

You might also like

advertisement