২৪ ঘণ্টার মাথায় চার চিকিৎসক বরখাস্ত

advertisement

ওএসডি করার মাত্র একদিনের মাথায় নড়াইল সদর হাসপাতালের চার চিকিৎসককে এবার সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সোমবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ থেকে তাদের বরখাস্ত করে আদেশ জারি করা হয়। বরখাস্ত হওয়া চার চিকিৎসক হলেন, কার্ডিওলজির জুনিয়র কনসালট্যান্ট মো. শওকত আলী ও মো. রবিউল আলম, সার্জারির সিনিয়র কনসালট্যান্ট মো. আকরাম হোসেন এবং মেডিকেল অফিসার এ এস এম সায়েম।

ওএসডি করার মাত্র একদিন পর আগের আদেশটি বাতিল করে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ জারি করা হইয়েছে। স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত চারজনের সাময়িক বরখাস্তের আদেশে প্রত্যেকের নাম ও পদবি উল্লেখ করে বলা হয়, ‘আপনি নড়াইল সদর হাসপাতালে প্রায়শই কর্মস্থলে বিনা অনুমতিতে অনুপস্থিত থাকেন বলে অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে, যা সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮ এর বিধি ২ (খ) মোতাবেক অসদাচরণের শামিল। আপনাকে নড়াইল সদর হাসপাতালে কর্মরত রাখা হলে অফিস শৃঙ্খলা ভঙ্গ হতে পারে ও অফিসের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। এজন্য আপনাকে সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপীল) বিধিমালা, ২০১৮ এর বিধি ১২ (১) মোতাবেক সাময়িক বরখাস্ত করা হলো’।

এর আগে গত বুধবার নড়াইলের সংসদ সদস্য ও জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা নড়াইল সদর হাসপাতালে আকস্মিক পরিদর্শনে গিয়ে এই চিকিৎসকদের কর্মস্থলে পাওয়া না গেলে রবিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় চার চিকিৎসককে সেখান থেকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। এ সময় তাদের ওএসডি করে স্বাস্থ্য অধিদফতরে সংযুক্ত করে আদেশ জারি করা হয়। হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে চিকিৎসকদের না পেয়ে মাশরাফি নিজেই হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক এবং একজন চিকিৎসকের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন। এ সময়কার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে এবং দেশের বেশ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে এ নিয়ে সংবাদও প্রকাশ করা হয়।

You might also like

advertisement