ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার দাবি

advertisement

সারাদেশে অব্যাহত ধর্ষণের প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা। ঢাবি শিক্ষার্থীরা ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রকাশ্যে মৃত্যদণ্ডে দাবি জানিয়েছেন। পাশাপাশি বিশেষ ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে ৩০ দিনের মধ্যে বিচার করে ধর্ষককে ফাঁসিতে ঝোলানোর দাবি জানান তারা।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়। ‘ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রকাশ্যে মৃত্যদণ্ড চাই’ লিখা সংবলিত ব্যানারে শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।

এ সময় ‘ধর্ষকদের মৃত্যুদণ্ড চাই’, ‘শিশুকামীদের ফাঁসি চাই’, ‘নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সময়ের দাবি’, ‘বিকৃত মানুষরূপী জানোয়ারমুক্ত সমাজ দাবি নয়, অধিকার’, ‘বিশেষ ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে ৩০ দিনের মধ্যে বিচার করে ধর্ষককে দড়িতে ঝোলাতে হবে’, ইত্যাদি লিখা সংবলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন শিক্ষার্থীরা।

ডাকসুর কমনরুম ও ক্যাফেটরিয়া বিষয়ক সম্পাদক লিপি আক্তার বলেন, ‘ধর্ষকদের আমরা সর্বোচ্চ শাস্তি কামনা করি। তাদের প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হোক। ধর্ষণের শাস্তি যদি মৃত্যুদণ্ড হয় তাহলে স্বাভাবিকভাবে ধর্ষকরা ভয় পাবে।’

পরিবেশ বিজ্ঞানী কানিজ আকলিমা সুলতানা বলেন, ‘ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতন এখন মহামারী আকার ধারণ করেছে। যেকোনো মহামারী সরকার চাইলে রুখতে পারে। প্রশাসন যদি তাদের এলাকার স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার সাথে সংযুক্ত থেকে খোঁজ-খবর নেয় তাহলে দুই দিন বছর পর এই ধর্ষণ রোধ হবে।

You might also like

advertisement