অচিরেই নগরবাসীকে ডেঙ্গুমুক্ত শহর উপহার দেব

advertisement

ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় নগর কর্তৃপক্ষ সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, অচিরেই সম্মানিত নগরবাসীকে ডেঙ্গুমুক্ত শহর উপহার দেব আমরা। আপনারা একটু সচেতন থাকবেন। সিটি কর্পোরেশনের কার্যক্রমের সঙ্গে নাগরিক সচেতনতার মাধ্যমে এটি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে।

শনিবার (১৩ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর খিলগাঁওয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী তানজিম আল ইসলামের ডেঙ্গু আক্রান্ত স্ত্রী সুমি আক্তারকে দেখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, সম্মানিত নাগরিকদের প্রতি আমার অনুরোধ-ভয়ের কিছু নেই, আপনারা আতঙ্কিত হবেন না। নগর কর্তৃপক্ষ আপনাদের পাশে আছে। আগামীকাল থেকে প্রতিটি ওয়ার্ডে আমাদের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম আপনাদের সেবায় কাজ করবে। বিনামূল্য চিকিৎসা দেবে, ওষুধ সরবরাহ করবে। যদি কোনো নাগরিক ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিমের কাছে আসতে না পারেন, তাহলে আমাদের ফোন করলে আমাদের স্বাস্থ্যকর্মীরা আপনাদের বাসায় চলে যাবে। আমরা সবাই মিলে এ ডেঙ্গু মোকাবিলা করব।

এদিকে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবীর ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে আইনি নোটিশ পাঠানোর বিষয়ে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, আমাদের একজন সম্মানিত নাগরিক ডিএসিসির কাছে ক্ষতিপূরণ চেয়ে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন। সেটি আমাদের আইনজীবীরা দেখবেন। কিন্তু আমি মনে করেছি আমার একজন সংক্ষুব্ধ নাগরিকের পাশে মেয়র হিসেবে তার পাশে থাকা। সে মানবিক বোধ থেকে আমি তার বাসায় তার স্ত্রীকে দেখতে এসেছি।

অন্যদিকে স্ত্রীকে মেয়রের দেখতে আসার বিষয়ে আইনজীবী তানজিম আল ইসলাম বলেন, আমি যে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছি সেটি শুধু ক্ষতিপূরণ নয়, প্রতিবাদের একটি ভাষাও। তাই ক্ষতিপূরণের বিষয়টি আইনি প্রক্রিয়ায় বিবেচনাধীন। এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে মেয়র আসায় আমি আমার পরিবার এবং নগরবাসীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই।

উল্লেখ্য, এর আগে স্ত্রী ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হওয়ায় ডিএসসিসির কাছে ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে সংস্থার মেয়র ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে আইনি (লিগ্যাল) নোটিশ পাঠান সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী তানজিম আল ইসলাম। ব্যক্তিস্বার্থে গত বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) রেজিস্ট্রি ডাকযোগে এই নোটিশ পাঠানো হয়। এরপরই আজ সুমি আক্তারকে দেখতে গেলেন মেয়র।

You might also like

advertisement