খুন হয়েছেন শ্রীদেবী, ফরেনসিক বিশেষজ্ঞের দাবি

advertisement

বলিউডের নারী সুপারস্টার প্রয়াত শ্রীদেবী। তুমুল জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীদেবী ভারতের চলচ্চিত্রে তিন দশক চুটিয়ে রাজত্ব করেছেন। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী হিন্দি, তামিল, তেলেগু, মালায়ালাম আর কান্নাড়া ভাষার তিন শতাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন শ্রীদেবী। যখন শ্রীদেবী ব্যস্ত নায়িকা ছিলেন, তখন তিনি সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পেয়েছেন। যখন বলিউডে নায়কদের আধিপত্য ছিল, তখন তিনি দাপটের সঙ্গে কাজ করেছেন। পর্দায় শ্রীদেবীর দ্যুতির কাছে ম্লান হয়েছেন অসংখ্য নায়ক।

হঠাৎ করে ২০১৮ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি দুবাইতে বলিউডের কিংবদন্তি অভিনেত্রী শ্রীদেবী মারা যান। ওই সময় ‘দুর্ঘটনাবশত পানিতে ডুবে’ মারা গেছেন বলেই তার ফরেনসিক রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়।

বরেণ্য অভিনেত্রীর মৃত্যুর পর একটি প্রশ্ন অনেকের মনেই ঘুরপাক খায়, কোনো মানুষ এক ফুট পানিতে ডুবে মারা যেতে পারে না। কেউ কেউ আবার শ্রীদেবীর মৃত্যু রহস্য খুঁজে ফেরেন।

তার মৃত্যুর এতোদিন পর এক ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ দাবি করেছেন শ্রীদেবীকে খুন করা হয়েছে।

ওই ফরেন্সিক এক্সপার্টের বিস্ফোরক দাবি বনি কাপুর একপ্রকার বিষয়টি উড়িয়ে দিলেন বলা যায়। শুধু তাই নয়, সেইসাথে কোনো প্রতিক্রিয়ায় জানান নি বনি কাপুর।

এইতো কিছুদিন আগেই শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে চাঞ্চল্যকর দাবি করেছেন ডিজিপি ঋষিরাজ সিং। তিনি বলেছেন, মোটেই আকস্মিক নয় অভিনেত্রীর মৃত্যু। এটা পরিষ্কার ঠাণ্ডা মাথায় খুন। আর এই দাবির পিছনে তার কাছে যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে। আর এমন দাবির পর হট্টগোল শুরু হয়ে যায় বলিউড পাড়ায়।

এ ঘটনার বিষয়ে জানতে উৎসুক হয়ে পড়ে গণমাধ্যমগুলোও। এই বিষয়ে গত শুক্রবার বনি কাপুরের সঙ্গে যোগাযোগ করে ভারতীয় একটি ওয়েব পোর্টাল। ঋষিরাজ সিংয়ের এহেন মন্তব্যের বিষয়ে বনির প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বনি কাপুর উত্তর, এই ভিত্তিহীন গল্পের কোন উত্তর দিতে চান না তিনি।

অবশ্য শ্রীদেবীর মৃত্যুর জন্য দায়ী তার স্বামী বনি কাপুর, এমন অভিযোগ আগেই উঠেছে শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে রহস্য ছিল আগেই। বাথটব থেকে মিলেছিল জনপ্রিয় নায়িকার মরদেহ। হার্টথ্রব অভিনেত্রীর অকাল প্রয়াণ কাঁপিয়ে দিয়েছিল পুরো ভারতবাসীকে। বছর ঘুরে যাওয়ার পর নায়িকার সেই মৃত্যু নিয়ে সামনে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য!

২০১৮ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি মৃত্যু হয়েছিল শ্রীদেবীর। দুবাইয়ের বিলাসবহুল হোটেলের স্নানঘরের বাথটবে পাওয়া গিয়েছিল শ্রীদেবীর মরদেহ। প্রাথমিক রিপোর্টে আকস্মিক মৃত্যু বলা হলেও, অনেকেই দাবি করেছিলেন, ঠান্ডা মাথায় ছক কষে খুন করা হয়েছিল শ্রীদেবীকে। এই ঘটনার সঙ্গে তার স্বামী বনি কাপুর জড়িত থাকতে পারেন, এমন সন্দেহও তৈরি হয়েছিল। এরপর থেকেই শ্রীদেবীর মৃত্যু ঘিরে তৈরি হয় ধোঁয়াশা। যা নতুন করে আবারও সামনে এসেছে।

সেই সময় তদন্তে সেরকম কিছু না পাওয়ায় মামলা শেষ করে পুলিশ। এমনকি, গত বছর মে মাসে দেশের শীর্ষ আদালতের তরফেও খারিজ করে দেওয়া হয় এই মামলা। কিন্তু সম্প্রতি কেরল জেলের ডিজিপি ঋষিরাজ সিং সামনে আনেন এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। তিনি জানান, তার বন্ধু ডক্টর উমাদাথন একজন অভিজ্ঞ ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ। তার কাছেই কৌতূহলের বশে অভিনেত্রী শ্রীদেবীর মৃত্যুর কারণ জানতে চেয়েছিলেন ঋষিরাজ। ব্যস, তখনই বিস্ফোরক মন্তব্য করেন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ উমাদাথন।

উমাদাথন জানান, ‘আমার অনুমান, সম্ভবত এই মৃত্যু স্বাভাবিক নয়। আবার অ্যাক্সিডেন্টাল মৃত্যুও নয়। হতে পারে তাকে খুন করা হয়েছে!’

এই বিশেষজ্ঞের মতে, শ্রীদেবীর মৃত্যু যেভাবে হয়েছে, কোনো মানুষ সেভাবে এক ফুট জলে ডুবে মারা যেতে পারে না। তিনি দাবি করেন, কেউ মাথা বা পা টেনে ধরে ডুবিয়ে না দিলে এক ফুট জলে ডুবে মারা যেতে পারেন না শ্রীদেবী। তার মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেন বনি। তার পেশ করা এই তথ্য বর্তমানে সবথেকে বড় চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে৷

You might also like

advertisement