ছাত্রীকে ধর্ম মেয়ে বানিয়ে অবৈধ মেলামেশা

advertisement

কথায় আছে ‘চোরের দশ দিন, গৃহস্থের এক দিন’। শেষ পর্যন্ত এমনটাই হলো। দশম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ম মেয়ে বানিয়ে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে মেলামেশা করে আসছিলেন এক শিক্ষক। অবশেষে এলাকাবাসীর কাছে হাতেনাতে ধরা খেল সেই শিক্ষক।

ঘটনাটি ঘটেছে গাইবান্ধা সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের রহমতপুরে। এলাকাবাসীর হাতে ধরা পড়া শরিফুল ইসলাম রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের রহমতপুর আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। একই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ম মেয়ে বানিয়ে অবৈধভাবে মেলামেশার সময় এলাকাবাসীর হাতে ধরা পড়েন তিনি।

এ ঘটনায় সহকারী শিক্ষক শরিফুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে রহমতপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি শিক্ষক শরিফুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্তের বিষয়টি জানায়।

এলাকাবাসী জানায়, দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ম মেয়ে বানিয়ে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে মেলামেশা করে আসছিলেন শিক্ষক শরিফুল। কয়েকদিন আগে স্কুলের টিফিনের সময় ওই ছাত্রীকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে যান শরিফুল। বাড়িতে ওই ছাত্রীর সঙ্গে অবৈধভাবে মেলামেশার সময় দেখে ফেলে স্থানীয়রা। সেই সঙ্গে মুহূর্তেই বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। পরে ওই শিক্ষককে হাতেনাতে ধরে ফেলে এলাকাবাসী। সেখান থেকে শিক্ষক শরিফুল পালিয়ে যান। বিষয়টি নিয়ে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন ওই শিক্ষক। এ অবস্থায় শনিবার বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভায় শিক্ষক শরিফুলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

তবে শিক্ষক শরিফুল ইসলামের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে ঘটনাটি ষড়যন্ত্রমূলক। ওই ছাত্রীর সঙ্গে কোনো ঘটনা ঘটেনি। এ ঘটনায় এখনো কোনো পক্ষ থানায় অভিযোগ করেনি।

এ বিষয়ে সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, ছাত্রীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ায় বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শরিফুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

You might also like

advertisement