তরুণীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ, আটক এক

সুজন সরকার, সিরাজগঞ্জঃ

advertisement

সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার গোশালায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক তরুণীকে এক বছর ধরে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এঘটনায় অভিরাম নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার রাতে ওই তরুণীকে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তরুণী বলেন, বাড়ির পাশ্ববর্তী দুলাল রায়ের ছেলে শুভ রায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রায় ১ বছর প্রেমের সম্পর্কে তাদের মধ্যে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এর মধ্যে ওই তরুনী শুভ কে বিয়ের চাপ সৃষ্টি করে। এর পর শুভ নিজেকে
আড়াল করার চেষ্টা করে। গত ১২ জুলাই বিকেলে শুভ ওই তরুণীকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে আসে। এসময় শুভর সাথে তার কয়েকজন বন্ধু ছিলো। তারা তরুনীকে পাশ্ববর্তী একটি বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে শুভ জোর পূর্বক তাকে ধর্ষণ করে।

এসময় তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে এসে শুভসহ ও তরুনীকে আটক করে। পরে তাদের মধ্যে বিয়ে দেয়ার উদ্যেগ নেয় স্থানীয়রা। পরে শুভ স্থানীয় লোকজনকে ম্যানেজ করে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। এঘটনায় স্থানীয় মাতব্বররা গতকাল ১৩ জুলাই বিকেলে সমাধানের উদ্যোগ নেয়। কিন্তু শুভ ওই বৈঠকে উপস্থিত না হলে ওই তরুনী একাধিক ঘুমের ট্যাবলয়েট খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। রাতে পরিবারের লোকজন তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। এঘটনায় তরুণীর মা শুভ কে প্রধান আসামী করে অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জনকে আসামী করে সিরাজগঞ্জ সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। এঘটনায় বাড়ির মালিক অভিরাম নামে এক ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশ। এ ব্যাপারে সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি অপারেশন) রফিকুল ইসলাম বলেন, যে বাড়িতে ঘটনাটি ঘটেছে সেই বাড়ির মালিক অভিরামকে আটক করা হয়েছে। তরুণীর মা মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার সাথে জড়িত শুভকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

You might also like

advertisement