পদ্মা সেতুতে মাথা লাগার গুজব, যুবক গ্রেফতার

advertisement

পদ্মা সেতুতে লক্ষাধিক মানুষের মাথার প্রয়োজন ফেসবুকে এমন গুজব ছড়ানোর দায়ে কুমিল্লার তিতাস উপজেলা এলাকা থেকে খোকন মিয়া (৩৫) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এসময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও জব্দ করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত খোকন মিয়া তিতাস উপজেলার মাছিমপুর গ্রামের মৃত হাফিজ উদ্দিনের ছেলে। সে বিভিন্ন সময়ে এ ধরণের গুজব তৈরী করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করে জনমনে বিভ্রান্তিসহ আতঙ্ক সৃষ্টি করছিল। রবিবার বেলা ১২টায় নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে কুমিল্লা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

পুলিশ সুপার জানান, সাম্প্রতিক সময়ে পদ্মা সেতু তৈরীতে লক্ষাধিক মানুষের মাথা লাগবে একটি কুচক্রি মহল সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন গুজব প্রচারের মাধ্যমে দেশের জনগণের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টিসহ সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমকে বাঁধাগ্রস্ত করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। এ ধরণের তথ্য নজরে আসার পর জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিট মনিটরিং শুরু করে। এরই মধ্যে গুজব ছড়ানো খোকন মিয়া ‘কযড়শড়হ গরধ’ নামের একটি ফেসবুক আইডি শনাক্ত করা হয়।

সে তার আইডিতে গত ৬ জুলাই মাথা কাটা থেকে সাবধান হুঁশিয়ার এবং ১০ জুলাই ‘একটি বিশেষ সংবাদ, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুমতিতে পদ্মা সেতু নির্মানের লক্ষে মানুষের মাথা খুব প্রয়োজন এবং মানুষের মাথা কেটে নেয়া হচ্ছে’ এমন গুজব প্রচার করে। বিষয়টি তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়ার পর তাকে গ্রেফতারে মাঠে নামে ডিবি পুলিশ। শনিবার রাতে কুমিল্লা ডিবি পুলিশের এসআই পরিমল চন্দ্র দাস পিপিএম এর নেতৃত্বে ডিবির একটি টিম তিতাস উপজেলায় অভিযান চালিয়ে খোকন মিয়াকে গ্রেফতার করে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত খোকন গুজব ছড়ানোর কথা স্বীকার করেছে। তার মোবাইল ফোনটি জব্দ করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) আবদুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর সালেহীন ইমন, ডিআইওয়ান মো: মাহবুবুর রহমান, ডিবির ওসি মাঈন উদ্দিন খানসহ অন্যন্যরা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে এ ঘটনায় তিতাস থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে ডিবি জানিয়েছে।

You might also like

advertisement